ডেস্ক রিপোর্টঃ অবৈধভাবে ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পণ্য তৈরি, মেয়াদ উর্ত্তীণ খাবার সংরক্ষণ, বিক্রয়, অবহেলা করে সেবা গ্রহিতার অর্থ ও জীবনহানি ঘটানোর প্রচেষ্টার অপরাধে কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডের রসনা বিলাস বেকারীকে অর্ধলক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

কুমিল্লা সদর দক্ষিণের এ্যাসিল্যান্ড ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জন দাস বুধবার অভিযান পরিচালনা শেষে এ দন্ড দেন। জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে কুমিল্লা-নোয়াখালী ও কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের কুমিল্লার পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডে সুপারসপ, সুইটস এন্ড বেকারীর ব্যবসা করে আসছে রসনা বিলাস। শো-রুম কিছুটা পরিচ্ছন্ন হলেও একই সড়কের যাত্রাপুরে অবস্থিত রসনা বিলাসের কারখানার পরিবেশ নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। রসনার তৈরিকৃত পাউরুটি, বিস্কিট, কেক ও মিষ্টিতে বিভিন্ন সময়ে মশা-মাছি পাওয়ার অভিযোগ উঠলেও কতৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। কারখানার বর্জ্য সড়কের পাশে খোলা জায়গায় ফেলার কারণে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লার ইয়াবা ডন মামুনের ছোট ভাই বিপুল পরিমান অস্ত্রসহ আটক

এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত বুধবার কুমিল্লা সদর দক্ষিণের এ্যাসিল্যান্ড ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জন দাস রসনা বিলাসের কারখানায় সরেজমিন যান। ওই সময় সদর দক্ষিণ মডেল থানার উপ-পদির্শক সুনিল চন্দ্র সূত্র ধরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দলও উপস্থিত ছিলেন। এ্যাসিল্যান্ড দেখেন, রসনা বিলাসের কারাখানার ভিতরে টয়লেট। পাউরুটি ও বিস্কিটের খামির মেয়াদ উর্ত্তীণ। খামির ও খিরে মৃত মাছি, ময়লা পড়ে আছে। বেকারীর কর্মীরা হাতে গ্লাফস না পরে কাজ করছে। খোলা জায়গায় বর্জ্য ফেলছে। পরে এ্যাসিল্যান্ড ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে রসনা বিলাস কতৃপক্ষকে ভোক্তা অধিকার আইনের ৪৩, ৫১ ও ৫৩ ধারায় নগদ অর্ধলক্ষ টাকা জরিমানা (মামলা নং ৭৮/১৯) করেন এবং ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করেন।

তাৎক্ষণিক জরিমানা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় পুলিশ বেকারীর ম্যানেজার মিজানুর রহমানকে আটক করে। এরপর রসনা বিলাসের মালিক মিন্টু ও আবুল হোসেন হেদায়েত জরিমানার টাকা পরিশোধ করে ম্যানেজারকে ছাড়িয়ে নেন। বেকারীর মালিক মিন্টু অভিযান ও জরিমানার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, অব্যবস্থাপনা সব বেকারীতেই থাকে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ