কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় বাড়ির জায়গা নিয়ে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনায় তিন নারীসহ ৪ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার বিকালে উপজেলার বাঘাইরামপুর গ্রামের খালেক মিয়ার পুরান বাড়িতে। আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করেছে।

গ্রামবাসী সুত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের আশকর আলী ও খালেকগংদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির জায়গা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে,তারই জের ধরে শনিবার বিকালে আশকর আলীর ছেলে মোস্তফা, হুমায়ুন, মেয়ে রুজিনা, শানু ও নাতি আকাশ সংঘ বদ্ধ হয়ে খালেক মিয়ার ছেলে লিটন, ছেলের বউ হোসনেরা ও শারমিনের উপর অতর্কিত হামলা করে গুরতর আহত করে এবং বসত ঘর ভাংচুর করে। এছড়াও হোসনেরা ও পারভিনের কানে থাকা স্বর্ণের রিং কান ছিড়ে নিয়ে যায় এবং রুনার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আব্দুল খালেকের ছেলে মফিজ বলেন আশকর আলীগং আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করে এবং আমাদের বাড়িতে এসে বসত ঘর ভাংচুর করে। এসময় আমার বৃদ্ধ বাবা বাধা দিলে ওনাকেও লাঞ্চিত করে যাওয়ার সময় আমাদের দুইট গরুকেও এলোপতারী পিটিয়েছে।

এবিষয়ে আশকর আলী বলেন আমি রুপ মিয়ার কাছ থেকে ক্রয় সুত্রে ৩ শতক ভুমির মালিক সেই জায়গায় তারা ঘর তুলে রাখছে, আমি আমার জায়গা ছেড়ে দিতে বলেছি এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের সাথে ঝগরা করেছে। আহতরা হল হোসনেরা(৫০),শারমিন(২৮) ,রুনা(২৫) ও লিটন(২৮)।

এদিকে ওই গ্রামের অনেকেই নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন প্রভাবশালী এক নেতার ইন্ধনে আশকর আলী গ্রামের নিরহ মানুষের উপর অত্যাচার করে। এঘটনায় খালেক মিয়ার ছেলে হক মিয়ার স্ত্রী শারমিন বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে । তিতাস থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: