ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ভাটিপাড়া এলাকার মতিন ও আলমগীর নামে দুই আসামীর মালামাল গতকাল বিকালে আদালতের নির্দেশে ক্রোক করেছে তিতাস থানা পুলিশ।

জানা যায়, গত ২৪/৩/১৮ ইং সালে রাত আনুমানিক ৮রাত সময়ভাটিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারান্দায় বসা অবস্থায় জগতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি এবং দু:সময়ের ত্যাগী নেতা মরহুম হাজী মোঃ মনির হোসেন কে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে।

তার কিছুদিন পর মামলা উঠানোর জন্য, হত্যার উদ্দেশ্যে মনির হোসেন এর ছেলে মোঃ মুক্তার হোসেন নাঈম এর উপর হামলা করে এই সন্ত্রাসী চক্র।

পরে তিতাস থানায় জি আর ১১৬/১৮ মামলা রুজু হয়েছিল। না্ঈমের উপর সন্ত্রাসীদের উক্ত হামলার পর ঘর তালা বদ্ধ রেখে পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে কুমিল্লা শহরে চলে গিয়ে বসবাস করা শুরু করেন। এই অবস্থায় নাঈমের গ্রামের বাড়ির ঘরের তালা ভেঙে টিভি ফ্রিজ ফ্যানসহ মূল্যবান সবকিছু চুরি করে নিয়ে যায় এই সন্ত্রাসীচক্র।

পরবর্তীতে আদালতে মামলা দায়ের করেন মুক্তার হোসেন নাঈম। মামলা নং সি আর ১৫/১৯। এই মামলায় গতকাল বিকালে পলাতক আসামী আলমগীর ও মতিনের ঘরের সকল মালামাল ও আসবাবপত্র ক্রোক করে তিতাস থানা পুলিশের এ এস আই সারোয়ার হোসেন সহ সঙ্গীয় ফোর্স আদালতের নির্দেশনায়। এই বিষয়ে মোক্তার হোসেন না্ঈম বলেন, আদালত ন্যায় বিচার করেছে। এর মাধ্যমে আইনের শাসন প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

মামলার ৯ জন আসামির মধ্যে ৪ জন পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে ক্রোকের পরোয়ানা জারি করেছেন কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩ নং আমলি আদালত। বিজ্ঞ আদালতের ক্রোকের পরোয়ানা পেয়ে গতকাল ১৫ সেপ্টেম্বর এ দুই জনের মালামাল ক্রোক করেছেন পুলিশ।