কুমিল্লার বুড়িচংয়ে একটি ধানক্ষেত থেকে মানুষের মাথার খুলি ও একটি হাত উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ১০ টায় বুড়িচং থানা পুলিশ খবর পেয়ে উপজেলার ষোলনল গ্রামের একটি ধানক্ষেতের আইল থেকে এসব উদ্ধার করে।

বুধবার সকালে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই খবর পেয়ে কুমিল্লার অ্যাডিশনাল এসপি তানভীর সালেহীন ইমন, জেলা পিবিআই এর একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউপির ষোলনল গ্রামের লোকজন ওই গ্রামের ধানক্ষেতের আইলে মাথার খুলি ও একটি হাত পড়ে থাকতে দেখে বুড়িচং থানা পুলিশকে ফোনে জানায়। খবর পেয়ে বুড়িচং থানার ওসি মো. মোজাম্মেল হক, ওসি তদন্ত মো. মাসুদ খাঁন, এসআই বিনোদ দস্তগীর সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মাথার খুলি ও হাত উদ্ধার করে।

হাতটি উদ্ধার করে ওই গ্রামের আব্দুল জলিল মেম্বারের ক্ষেতের আইল থেকে এবং মাথার খুলি উদ্ধার করা হয় পাশের একই গ্রামের শাহ আলমের ক্ষেতের আইল থেকে।

পুলিশ আরো জানায় অজ্ঞাত ব্যক্তির হাতের অংশে কাপড় আটকানো পাওয়া গেছে এবং মাথার খুলির মাংস পঁচে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে গত ২০-২৫ দিন আগে হত্যা শেষে ক্ষেতে আইলে মাথা ও হাত ফেলে চলে গেছে ঘাতকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, ওই গ্রামের আব্দুস ছামাদ এর স্ত্রী এবং রাসেলের মা গত ২০ সেপ্টেম্বর নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় বুড়িচং থানায় ২৫ তারিখ একটি জিডি করা হয়।

বুড়িচং থানার ওসি মো. মোজাম্মেল হক জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টায় গোপন ফোনে খবর পেয়ে ষোলনল গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে মানুষের মাথার খুলি ও হাত উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার দেহের অংশগুলো ডিএনএ পরীক্ষার জন্য মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: