কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার ঘিলাতলা গ্রামের নার্সারী শ্রেণির ৫ বছরের এক শিশুকে ধ’র্ষণের অভিযোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। শিশুটিকে বুড়িচং থানা পুলিশ মেডিকেল পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। ধ’র্ষক নেয়ামত সর্ম্পকে শিশুটির চাচাত ভাই।

পুলিশ ও মামলার বিবরণে জানা যায় জেলার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ঘিলাতলা গ্রামের বড় বাড়ির সিএজি চালক মোঃ ফখরুল ইসলাম এর বড় মেয়ে স্থানীয় মাদার শংকুচাইল কিন্ডার গার্টেন এর নার্সারী শ্রেণির ছাত্রী।

গত বুধবার বিকালে ফখরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা আক্তার ফারহানা (৩৪), তার ছোট ছেলে ফারিয়ান (৪ মাস) এর স্বাস্থ্য খারাপ হওয়ায় তাকে ডাক্তার দেখানোর জন্য গাজীপুর কালিকাপুর বাজারে যান। এ সময় তিনি ফখরুল ইসলাম এর নিকট তার শিশু মেয়ে মাদার কিন্ডার গার্টেন ওই ছাত্রীকে (৫) রেখে ডাক্তারের নিকট যান। শিশুটির পিতা ফখরুল ইসলাম বিকাল সাড়ে চারটার সময় বাড়ীর পাশে চা দোকানে যান শিশুটিকে বাড়িতে রেখে।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় ফখরুল ইসলাম বাড়ি ফিরে দেখেন শিশুটিকে জড়িয়ে ধরে তার মা আত্মীয় স্বজনরা কান্না কাটি করছেন আর শিশুর জামা রক্তে ভেজা। এ সময় তিনি জানতে পারেন ফখরুল ইসলাম এবং তার স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে এই বাড়ির গাজী শফিক এর বখাটে ছেলে নেয়ামত উল্লাহ (২৫) বিভিন্ন ভাবে শিশুটিকে ফুসলিয়ে একই বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে জোড় পূর্বক ভাবে ধ’র্ষণ করে।

শিশুটির আ’ত্মচিৎকারে বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসলে নেয়ামত উল্লাহ দ্রুত পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। তখন মেয়েটির মা ও বাড়িতে ডাক্তার দেখিয়ে ফিরে আসেন। এ সময় ওই শিশু মেয়েটিকে জিজ্ঞাসা করলে তার মার নিকট বলেন একই বাড়ির নেয়ামত উল্লাহ তাকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ওই পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে ধ’র্ষণ করেন।

বৃহস্পতিবার সকালে শিশুটির বাবা ফখরুল ইসলাম বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ব্যাপারে বুড়িচং থানার ওসি মোঃ মোজ্জামেল হক পিপিএম বলেন ভিক্টিমকে আমরা মেডিকেল পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছি।
বুড়িচং থানায় এই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের পুলিশি অভিযান অব্যহত রয়েছে।