বুড়িচং প্রতিনিধিঃ কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলায় ১৩ বছরের এক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে প্রতিবেশী ৪ সন্তানের জনক কর্তৃক ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষক পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী মো:কামাল হোসেন (৩০) পলাতক। বুড়িচং থানার ওসি তদন্ত নজরুল ইসলাম জানান, ৯অক্টোবর রাত ৩টায় এ ঘটনাটি ঘটে এবং ভিকটিমকে পরিবার থানায় একটি অভিযোগ করেন। এ অভিযোগ তদন্তে সততা নিশ্চিত করে ধর্ষক’কে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে। জানা গেছে, বাকশীমূল ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকার কালীকৃষ্ণনগর আর্দশ গ্রামের কলনীপাড়ার মো:জামাল হোসেনের মেয়ে খাদিজা আক্তার ১৩ বছরের প্রতিবন্ধী কিশোরী’কে একই গ্রামের প্রতিবেশী মৃত.রহমানের ছেলে ৪ সন্তানের জনক ও পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী মো:কামাল হোসেন(৩০) ৯ অক্টোবর রাত ৩টায় ঐ খাদিজার ঘরের দরজা খুলে তাকে জোরপূর্বক ভাবে ধর্ষন করে বলে পাশে থাকা নানি জানান। মেয়েটির মা মোসা জামেনা আক্তার জানান,আমি গরিব মানুষ অন্যের বাড়িতে কাজ করে খাই, আবার কখনো কখনো রোজ হিসেবে কাজ করি এবং এ কাজের জন্য সীমান্ত হয়ে ভারতে ২-৩ দিনের জন্য চলে যাই। এ খবর পেয়ে আমি বাড়িতে চলে আসি। আমার মা আমাকে উপরোক্ত ঘটনা খুলে বলেন এবং মো :কামাল হোসেন ধর্ষন করার সময়, মেয়ে চিৎকার করাতে দেখে ফেললে হাত পা ধরে ক্ষমা চায়ে এবং দৌড়ে পালিয়ে যায় ধর্ষক মো:কামাল হোসেন। ধর্ষক ও ধর্ষকের পরিবার এ ঘটনাটি এলাকার প্রভাবশালীদেরকে নিয়ে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চললে আমি আমার মেয়ে কে নিয়ে থানায় চলে আসি এবং থানার ওসি তদন্ত নজরুল ইসলাম এ বিষয়টি আইনের আওতায় এনে ধর্ষককে গ্রেপ্তার করবে বলে জানায়। এ ব্যাপারে ধর্ষকের বড় ভাই মো বাকির মিয়া সাথে কথা বলিলে তিনি বলেন আমার ছোট ভাই মো: কামাল হোসেন এমন ন্যাক্কার কাজ কখনো করতে পারে না, এবং এই প্রতিবন্ধী মেয়ের চেয়ে তার ঘরের বউ অনেক সুন্দর ও তার ঘরে উপযোক্ত মেয়ে আছে তাই সে সম্মান রক্ষার্তে এমন কাজ করতে পারে না এলাকার কিছু মাদক ব্যবসায়ী আছে তারা ষড়যন্ত্র করে আমার ভাইয়ের উপর দোষ চাপিয়ে দিচ্ছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: