কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের এস এস সি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফলে বুড়িচং উপজেলার ৪০ বিদ্যালয় থেকে ৩হাজার ২ শত ৮৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১৯১ টি জিপিএ-৫ সহ মোট উত্তীর্ণ হয়েছে ৩হাজার ১২ জন,পাসের হার ৯১.৬৬%।

এর মধ্যে বুড়িচং আনন্দ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৫৫টি জিপিএ -৫ সহ শতভাগ পাস করেছে। ফলাফলে উপজেলা পর্যায়ে সেরা বিদ্যালয় হিসেবে বরাবরের মতো নির্বাচিত হয়েছে।

অপর দিকে পীর যাত্রাপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৮২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১৪টি জিপিএ -৫ সহ উত্তীর্ণ হয়েছে ৭২ জন, পাসের হার ৮৭.৮০%।

অন্য দিকে শতভাগ পাস করা বিদ্যালয় গুলো হলো বালিখাড়া আব্দুল মতিন খসরু উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩০জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৩০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে, কুসুম পুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৭টি জিপিএ -৫সহ ৫৬ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৫৬ জন উত্তীর্ণ। হরিণধরা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩৬ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৩৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছে।

উপজেলার ২৯ টি মাদ্রাসা থেকে ৯৩৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২১ টি জিপিএ -৫ সহ মোট উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৭৪ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে শতভাগ পাস করেছে ৯ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শতভাগ পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ হল কংশনগর ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রাসা, শিকারপুর দারুল কোরআন সিনিয়র মাদ্রাসা, এদবারপুর এ ডি এস দাখিল মাদ্রাসা, ছয়গ্রামে আলিম মাদ্রাসা, কালাকচুয়া ইসলামীয়া ফাজিল মাদ্রাসা, খাড়াতাইয়া ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, ইছাপুরা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা, খাড়াতাইয়া ইসলামিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসা, বাকশীমুল ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা।

এছাড়া উপজেলার ৫ টি বিদ্যালয় থেকে এবার এস এস সি ভোকেশনাল পরীক্ষায় ৩৭৮ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ৫২ টি জিপিএ -৫ সহ মোট ২৮৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। পাসের হার ৭৫.৩৯%। এর মধ্যে উপজেলা সদরের ফজলুর রহমান মেমোরিয়্যাল কলেজ অব টেকনোলজি থেকে ১৫৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২৬টি জিপিএ -৫ সহ মোট উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৭ জন, পাসের হার ৮৬.১৬%। উপজেলা পর্যায়ে বরাবরের মতো সেরা বিদ্যালয় হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: