কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা এলাকায় গুরুত্বপূর্ণ সড়কের একটি ব্রীজ ভেঙ্গে খালে পড়ে যায়। খরা মৌসুমে খাল খনন করায় এবং গত কয়েকদিনের পাহাড়ী ঢলের পানিতে চাপে বীজের খুটির নিচের মাটি সরে গিয়ে গতকাল রবিবার সকালে ব্রীজটির দুই পাশ থেকে ভেঙ্গে পুরো ব্রীজটি খালে ধসে পরে।

সরজমিনে ঘুরে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের খলিফা পাড়া এলাকায় মিয়া বাড়ির সংলগ্ন ব্রীজটি রবিবার সকাল ১০ টায় খুটির নিচের মাটি সরে গিয়ে ব্রীজটি খালে ধসে পরে। এ ঘটনায় চান্দলা মিয়া বাড়ি, খলিফাপাড়া, চরের পাথর, নোয়াপাড়া, লালখার সহ কয়েকটি এলাকার মানুষের চলাচলে বিগ্ন ঘটে।

এব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ জাকির হোসেন খান জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ড নিজ ইচ্ছা মতে খাল খনন করার সময় এলাকাবাসীসহ আমরা ব্রীজের গুড়ার মাটি খনন করতে নিষেধ করেছি। খননকারীরা আমাদের কথা কোন প্রকার আমলে না নিয়ে ভেকু মেশিন দিয়ে ব্রীজের গুড়ার মাটি কেটে সরিয়ে নেয়। বর্তমানে বর্ষার মৌসুমে বৃষ্টির পানি ও পাহাড়ী ঢলেরর পানিতে হেলে আজ (২৩ আগষ্ট) সকলে পুরো ব্রীজটি খালে ধসে পরে যায়। এতে কয়েকটি এলাকার কয়েক হাজার মানুষের চলাচলে বিগ্ন ঘটেছে।

এদিকে ওই এলাকার একাধিক ব্যাক্তি জানানা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের খামখেয়ালীর কারনে আজ এই ব্রীজটি ধসে পরেছে। যার ফলে এখন কয়েক হাজার মানুষের হাট বাজারে ও কর্মস্থলে যাতায়াতের ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বিষয়ে আমলে নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে এ এলাকার মানুষের চলাচলের সুবিধার্থে ব্রীজটি উপযোগী করে তোলার আহবান জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, চান্দলা এলাকায় ব্রীজ ধসে খালে পড়ের যাওয়ার বিষটি আমি আবগত আছি এবং সরজমিনে আমার প্রতিনিধি পঠিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে উপজেলা প্রকল্প বস্তবায়ন দপ্তরের মাধ্যমে পূনরায় নির্মানের বিষয়ে প্রক্রিয়া চলছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: