করোনা দুর্যোগে আর্থিক সংকটে পড়া গ্রামের অর্ধশতাধিক দরিদ্র পরিবারের বাড়ি গিয়ে আঁধার রাতে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিলেন একঝাঁক তরুণ। কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বাইশগাঁও ইউনিয়নের কেয়ারী গ্রামের কিছু তরুণ ও যুবকের উদ্যোগে এই খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী পায় ওই গ্রামের দরিদ্র পরিবারগুলো। কেয়ারী মানব কল্যাণ সংস্থা নামে এই তরুণ ও যুবকদের একটি সামাজিক সংগঠন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২০ এপ্রিল) রাতে সংগঠনের সদস্যরা বিতরণ সামগ্রী কাঁধে-পিঠে করে গ্রামের অর্ধশতাধিক দরিদ্র পরিবারের বাড়িতে পৌঁছে দেন। বিতরণ সমগ্রীর মধ্যে রয়েছে মুড়ি, ছোলা, খেজুর, চিনি, ট্যাংক, খেসারি ডাল ও তেল।

সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক মাহবুবুর রহমান শাহীন জানান, ইফতার সামগ্রীর আগে কয়েক দফা স্থানীয় প্রবাসী ও বিত্তবানদের সহযোগিতায় এই দরিদ্র পরিবারগুলোর মাঝে ও ডালসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী বিরতণ করা হয়। এই ইফতার সামগ্রী বিতরণেও স্থানীয় প্রবাসী ও বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগিতা রয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রামণ দেখা দিলে গ্রামের প্রত্যেক পরিবারের মাঝে মাস্ক ও জীবাণুনাশক বিতরণ করে লিফলেটের মাধ্যমে ভাইরাসের আক্রমণ সম্পর্কে সচেতন করা হয়।

তিনি আরও জানান, যতদিন করোনার সংক্রামণ থাকবে পর্যায়ক্রমে দরিদ্রদের মাঝে সাহায্য অব্যাহত থাকবে।

খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণে সার্বিক কার্যক্রমে ছিলেন সংগঠনের সদস্য মো. রিপন ভূঁইয়া, মাহবুবুর রহমান শাহীন, মাসুদ আলম (সাংবাদিক), আনোয়ার হোসাইন, আবদুল আউয়াল ভূঁইয়া, মো. মোরশেদ আলম, মো. ইউসুফ ভুঁইয়া, মো. জাকির হোসেন, মো. মামদুদ হোসেন, মো. কামরুল হাসান প্রমুখ।