মনোহরগঞ্জে সরকারি খাস জমি জবর-দখলের অভিযোগ

মনোহরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মনোহরগঞ্জের নাথেরপেটুয়া রেলওয়ে সুপার মার্কেটের পশ্চিম বাজার সংলগ্ন সরকারী খাস জমি জবর-দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই সরকারি জমি দখলমুক্ত করার জন্য মনোহরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও মনোহরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন মোঃ মুসলিম খাঁন নামে এক ব্যাক্তি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গণিপুর গ্রামের মৃত আম্বর আলীর ছেলে আবুল কালাম (সাবেক মেম্বার) এর বিরুদ্ধে এ নাথেরপেটুয়া রেলওয়ে সুপার মার্কেটের পশ্চিম বাজার সংলগ্ন সরকারী খাস জমি উপজেলার বিনয় ঘর মৌজার জেএল নং ৪৫০, সিট নং ০১, সাবেক দাগ ৮৩, হালে ২০০ ও ১৬৯ দাগে সর্বমোট ২৬ শতক জমি জবর-দখলের মাধ্যমে দীর্ঘদিন থেকে ভোগ-দখলের অভিযোগ করেছেন একই গ্রামের মোঃ মুসলিম খাঁন। এছাড়া নাথেরপেটুয়া রেলওয়ে সুপার মার্কেটের পশ্চিম বাজারস্থ একটি পাবলিক টয়লেট ভেঙ্গে ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার অভিযোগও রয়েছে আবুল কালাম ওরপে কালাম মেম্বারের বিরুদ্ধে। ওই টয়ললেটটি ভেঙ্গে ফেলায় মার্কেটেস্থ ব্যাংক, বীমা ও এনজিও গ্রাহকদের পাশাপাশি স্থায়ী-অস্থায়ী ব্যবসায়ি, স্থানীয় লোকজন, ক্রেতা ও পথচারীদেরকে মানবিক বিপর্যয়ের শিকার হতে হচ্ছে। মার্কেটের সুষ্ঠু পরিবেশ আনয়ন ও মার্কেট এলাকাকে মানবিক বিপর্যয় থেকে রক্ষায় টয়লেটের জায়গাটি অবমুক্ত ও পুনঃটয়লেট স্থাপনের দাবী এলাকার সর্বস্তরের জনগনের।

ওই অভিযোগে আরো জানা যায়, আবুল কালাম মেম্বার একজন দখলবাজ। তার অবৈধ দখল থেকে বাজারের টয়লেটের জায়গা ও বাজার সংলগ্ন জমিটি মুক্ত করা এলাকাবাসীর দাবী। এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন থেকে সরকারি খাস জমিটি ভোগ-দখল করছেন আবুল কালাম মেম্বার। তিনি খুবই চতুর ও কুটকৌশলী। ওই মেম্বারের বিরুদ্ধে পেশী শক্তির অভিযোগ থাকায় সাধারন জনাগণ ভয়ে জবর দখলের প্রতিবাদ করতে পারছেননা।

লিখিত অভিযোগকারী মোঃ মুসলিম খাঁন বলেন, আমার অভিযোগের সত্যতা যাচাই, আইনগত পরামর্শ প্রদানের নিমিত্তে ও এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে স্থানীয় কিংবা আদালত কর্তৃক কোন প্রকার আদেশ না পাওয়া পর্যন্ত কোন পক্ষ তফসিলভুক্ত জমির রূপ পরিবর্তন, পরিবর্ধন, দখল, বেদখল না করতে পারে এ জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগীতা জরুরী।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ