ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) সান্ধ্যকালীন কোর্সের এক ছাত্রীকে যৌ’ন হয়রানির ঘটনায় অভি’যুক্ত ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. আলী রেজওয়ান তালুকদারকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে কুবির সান্ধ্যকালীন কোর্সের সকল ধরনের কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে রোববার (২০ জানুয়ারি) নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের।

তিনি জানান, ইংরেজি বিভাগের সান্ধ্য কোর্সে অধ্যয়নরত এক ছাত্রীর করা যৌ’ন হয়রানির অভিযোগের ভিত্তিতে উপাচার্যের সাথে কথা বলে একটি তদ’ন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর তদ’ন্ত চলাকালীন সময়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে সান্ধ্যকালীন কোর্সের সকল ধরনের কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন সাপেক্ষে আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিব।

এদিকে, অভিযোগকারী শিক্ষার্থীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌ’ন নিপীড়ন সেলকে বিষয়টি তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী। কুবির বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কামরুন নাহার শীলাকে আহ্বায়ক করে এই তদন্ত কমিটি গঠন হয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

এদিকে, অভি’যুক্ত শিক্ষক শুরু থেকেই যৌ’ন হয়রানির অভিযোগটি ভিত্তিহীন বলে দাবি করছেন। গত রোববার (১৯ জানুয়ারি) এই সংক্রান্ত একটি সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে ওই ছাত্রীকে মান’সিকভাবে ভারসাম্যহীন বলে আখ্যা দেন তিনি। এই ঘটনায় অন্য এক ইংরেজি শিক্ষক জড়িত বলেও অভিযোগ করেন এই শিক্ষক।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: