সদর দক্ষিণ প্রতিনিধিঃ শুধু শহর বন্দরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকেই যে ভাল ফলাফল অর্জন করা হয় তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।সমাজের যারা ভাল পর্যায়ে অবস্থান করছেন তাদের মধ্যে অধিকাংশই হচ্ছে গ্রাম থেকে উঠে আসা।বর্তমান সরকারের আমলে শহরের সিলেবাসের কাঠামো অনুসারেই কিন্তু গ্রামের স্কুল কলেজে শিক্ষকরা পাঠদান দিচ্ছেন।শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।শিক্ষা মানুষকে সাবলম্বী করে তোলে।আর এ সাবলম্বী হতে হলে প্রয়োজন ইচ্ছা শক্তির।সমাজকে মাদকমুক্ত করতে হলে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করতে হবে।শিক্ষার মাধ্যমেই একজন মানুষ সুশিক্ষিত হয়ে সমাজের অবকাঠামো পরিবর্তন করতে পারে । মঙ্গলবার সদর দক্ষিণ উপজেলার মথুরাপুর আক্তার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুমিল্লা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়ার এ্যাডমিরাল (অবঃ) আবু তাহের এ সব কথা বলেন।তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্য করে আরো বলেন,সন্তানদের প্রতি সর্বদা খেয়াল রাখতে হবে।শিক্ষার্থীদেরকে মুঠোফোন ও টেলিভিশন অতি প্রয়োজন ছাড়া ব্যবহার করতে দেয়া যাবে না।সন্তানদের প্রতি বন্ধুসূলভ আচরণ করতে হবে।মথুরাপুর আক্তার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠানের জন্য আর্থিকভাবে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস প্রদানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন ধরনের দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি তার বক্তব্য শেষ করেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর দক্ষিণ উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম সারওয়ার,ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল হাই বাবলু, পূর্ব জোড়কানন ইউপি চেয়ারম্যান এম হারিছ মিয়া।পূর্ব জোড়কানন আওয়ামীলীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও তরুণ সমাজসেবক হাফিজুল্লাহ খোকনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠানে অতিথিদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কামাল উদ্দিন কামাল,পশ্চিম জোড়কানন ইউপি চেয়ারম্যান হাসমত উল্লা হাসু,মথুরাপুর বিজিবি’র কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার গোপাল সিংহ,সমাজসেবক আক্তার আলী,আওয়ামীলীগ নেতা হাজী আব্দুল মমিন,তৌফিকুল ইসলাম রিপন,মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগ যুগ্ম আহবায়ক ডা: জসিম উদ্দিন,মোঃ কাজী ফজল মেম্বার,যুবলীগ নেতা মমিনুল ইসলাম লিটন,পূর্ব জোড়কানন সেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক সোহেল খান,যুবলীগ নেতা এমদাদ,ছাত্রলীগের আহবায়ক আরাফাত প্রমুখ।