কুমিল্লার হোমনায় উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের এক শিশু সন্তানের জননী বিধবাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে রাতভর গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার (২৬ এপ্রিল) রাতে ভিটিকালমিনা (মধ্যপাড়া) গ্রামে নিয়ে ৫ বন্ধু মিলে তাকে ধর্ষণ করে । পরের দিন সকালে ধর্ষিতা বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে হোমনা থানায় মামলা করেন। ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-১। মোঃ রুবেল (২৮), পিতা-রুপ মিয়া ২। মোঃ শরিফ মিয়া (২৮), পিতা-মোঃ ইউসুফ মিয়া ৩। সজিব প্রঃ ডিজে (২২), পিতা-মনু মিয়া ৪। মোঃ রিপন (২৬), পিতা-হাজী মিজানুর রহমান ৫। মোঃ রফিক (৩০), পিতা-আজগর মিয়া সর্বসাং-ভিটিকালমিনা , হোমনা,কুমিল্লা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সন্ধ্যার পূর্বে শিশু সন্তানের জন্য খাবার কিনতে ধর্ষিতা বিধবা বাড়ি থেকে দোকানে যাই। যাওয়ার পথে তার পূর্ব পরিচিত আসামীরা সিএনজি যোগে এসে তাকে জোর পুর্বক তুলে নিয়ে ভিটিকালমিনা গ্রামের সজিব ওরফে ডিজি এর বসত বাড়িতে নিয়ে আটকিয়ে জোর করে ইয়াবা সেবন করায় । পরে আমাকে হত্যার ভয় দেখিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে রাতভর ৫ জনে মিলে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে । পরদিন সোমবার (২৭ এপ্রিল) ভোরে সেখান থেকে পালিয়ে এসে ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে হোমনা থানায় ধর্ষণ মামলা করেন । যার মামলা নং ১১,তারিখ-২৭/৪/২০২০ খ্রি. ।

হোমনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল কায়েস আকন্দ বলেন, ধর্ষণ মামলার ৫ আসামীর মধ্যে ৪ জনকে আটক করা হয়েছে । আসামিরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। বাকী ১ জন আসামি এখনো পলাতক আছেন এবং তাকে ধরার চেষ্টা করছি। আসামিদেরকে কুমিল্লা আদালতে প্রেরণ করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: