কুমিল্লার বরুড়ায় ৪টি চোরাই গরুসহ ৫ জনকে আটক করে গণপিটুুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। পরে বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) রাত ৮টার দিকে থানা পুলিশের কাছে তাদের সোপর্দ করা হয়।

আটকরা হলেন- আদ্রা আউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের আবু ছাদেকের ছেলে আবু নোমান (২৫), ষোলাপুকুরিয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে জসিম উদ্দিন (৪২), পেরপেটি গ্রামের আবু মিয়া (৭০), আবদুল আজিজ কাউছার (৩০) এবং হেরপেটি গ্রামের আবদুল হান্নান (৩৫)।

বরুড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) চন্দন কান্তি দাস জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, গত সোমবার (১৯ জুলাই) ভোরে উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের পেরপেটির আমিন মার্কেটে অবস্থিত মামুন মজুমদারের গরুর খামার থেকে একটি গরু চুরি হয়। বুধবার (২১ জুলাই) রাত ৩টার দিকে পিকআপ যোগে গরুটি বিক্রির জন্য নিয়ে যাওয়ার সময় পার্শ্ববর্তী সোনাইমুড়ী বাজারের নৈশপ্রহরীরা গরুসহ ৪ জনকে আটক করে। পরে তাদের তথ্য মতে গরু চোর সর্দার আবু মিয়ার বাড়ি থেকে আরও তিনটি চোরাই গরু উদ্ধার করে এলাকাবাসী। এ সময় চুরির দায়ে আবু মিয়াকেও আটক করা হয়।

হেরপেটি গ্রামের ভুক্তভোগী জামাল হোসেন জানান, এরা দিনে ছদ্মবেশী গরু ব্যাপারী আর রাতের আঁধারে গরু চোর। তাদের উৎপাতে গ্রামে গরু পালন করা কষ্টকর হয়ে উঠেছে। আগেও তারা বেশ কয়েকটি ঘটনায় ধরা পড়েছে।

আদ্রা আউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল করিম বলেন, গত এক মাসে আমার ইউনিয়ন থেকে এ চক্রটি অন্তত ৪৪টি চুরি করেছে। স্থানীয়ভাবে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিচারের মাধ্যমে এ চক্রের সাত সদস্যকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তবে এদের মধ্যে দুইজন পালাতক রয়েছে। আটকদের পুলিশে দেয়া হয়েছে এবং জব্দকৃত ৪টি গরু চকিদারের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এসআই চন্দন কান্তি দাস জানান, আটকদের থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে গরু চুরির দায়ে মামলা শেষে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কারাগারে পাঠানো হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: