ছবি: প্রতীকী

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার খোশবাস দক্ষিণ ইউনিয়নে নানার বিরুদ্ধে ১০ বছরের নাতনিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ইউনিয়নের একটি গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

শিশুটির নানি জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে পিঠা বিক্রি করছিলেন তিনি। খালি বাড়ি পেয়ে তার নাতনিকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি। সে সম্পর্কে শিশুটির দুঃসম্পর্কের নানা। পরে ভুক্তভোগীর মামি স্থানীয় একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দ্রুত কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে পাঠাতে নির্দেশ দেন। বর্তমানে ভুক্তভোগী শিশুটি কুমেকে ভর্তি আছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান বলেন, “ধর্ষণের ঘটনাটি সত্য। আমার কাছে মীমাংসা করে দেওয়ার জন্য এসেছিল অভিযুক্ত ব্যক্তির পরিবার। তারা বলেছে প্রয়োজনে মেয়ের পরিবারকে দুই শতক জায়গা দেবে।” তবে ঘটনাটি যেন আর না সামনে এগোয় সেই অনুরোধও তাকে করেছে অভিযুক্তের পরিবার। এদিকে, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, “আমি ধর্ষণের ঘটনা সম্পর্কে জানতে পেরেছি। মেয়েটি এখন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছে শুনেছি। কিন্তু এখনও কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি।”

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: