ডেস্ক রিপোর্টঃ টিম কুমিল্লা এবার অনেক শক্তিশালী উল্লেখ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চেয়ারপার্সন নাফিসা কামাল বলেছেন, মনে হয় আমরা একটা ফাইট দিতে পারবো ট্রফির জন্য। আমাদের কোচ সালাউদ্দিন স্যার ফেরত এসেছেন। যিনি আমাদের চ্যাম্পিয়ন টিমের সাথে ছিলেন। আর বাকী কিছু সদস্য ফেরত এসেছেন। সো আমার মনে হয় যে ইনশাআল্লাহ আমরা ভালো করবো, এই আত্মবিশ্বাস আমাদের মাঝে কাজ করছে।
বিপিএলের অন্যতম দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের চেয়ারপার্সন নাফিসা কামাল সোমবার রাতে এক সাক্ষাতকারে এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, ভাগ্যের উপরে অনেক কিছু নির্ভর করছে। ২০১৫ সালে আমরা যে উৎসাহ নিয়ে কাজ করেছি। এবার মনে হচ্ছে সেটা আবার অনুভব করতে পারছি। একইভাবে আমরা এগুচ্ছি। ইনশাআল্লাহ, অবশ্যই আশা করি যে ট্রফিটা আমরা পুণরুদ্ধার করতে পারবো।

প্রশ্ন: এবারের প্রস্তুতিটা কেমন? কেমন টিম হলো?
নাফিসা কামাল: মাঠের বাইরে প্রস্তুতিটা তো মোটামোটি আমরা গুছিয়ে এনেছি। সময়ও আর বেশি নাই। টিমও আমাদের সেটিসফেকশানের মাঝেই আছে এবার। দেশি বিদেশী যে প্লেয়ার আমরা পেয়েছি আমার মনে হয় যে একটা ভালো শক্তিশালী টিম গঠন করতে পেরেছি। ব্যালেন্সড টিম। সিনিয়র প্লেয়ার আছে, এক্সপেরিয়ান্স প্লেয়ার আছে এবং লোকাল যে প্লেয়ার আছে তারা নিয়মিত প্র্যাকটিস করছে। সাউথ আফ্রিকার ট্যুরে বাংলাদেশ টিমে আমাদের কুমিল্লার চারজন ভিক্টোরিয়ান্সের প্লেয়ার খেলেছে। সুতরাং তারা নিয়মিত প্র্যাকটিসে ছিল। তারা এখন ফেরত এসেছে। আর বাকী লোকাল প্লেয়াররা অলরেডি রিলেটেড ক্যাম্প শুরু করে দিয়েছে। ফরেন প্লেয়াররা সোমবার থেকে আসা শুরু করেছে। বুধবারের মধ্যে সবাই সিলেটে পৌঁছে যাবে।

প্রশ্ন: কারা কারা আসবে?
নাফিসা কামাল: আজকে (সোমবার) আসছে জর্জ বাটলার আর রাশেদ খান। জর্জ বাটলার ইস দ্য ফাস্ট ওয়ান যে বাংলাদেশে পৌঁছেছে। সো ভাল লাগছে দেখে যে স্টার প্লেয়ার আমাদের টিমের মধ্যে আসছে।

প্রশ্ন: আপনার কি মনে হয়, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স শিরোপা অর্জন করেছিল প্রথমদিকে তা এবারও পারবে?
নাফিসা কামাল: আসলে মাঠের বাইরে কাজ করার প্রস্তুতি তো আমরা করেছি। এখন মাঠে কি হয় এটা তো সবার দোয়া, আপনাদের দোয়া আর ভাগ্যের উপরে নির্ভর করছে। ২০১৫ সালে আমরা যে উৎসাহ নিয়ে কাজ করেছি। এবার মনে হচ্ছে সেটা আবার অনুভব করতে পারছি। একইভাবে আমরা এগুচ্ছি। ইনশাআল্লাহ, আশা করি, অবশ্যই আশা করি যে কাপটা আমরা ফেরত নিয়ে আসতে পারবো।

প্রশ্ন: প্লেয়ারদের নিয়ে কি আপনার সেটিসফেকশান আছে?
নাফিসা কামাল: জ্বি। সেটিসফেকশান আছে। নিজের কাজ নিয়েও সেটিসফেকশান থাকতে হবে। সো আমার মনে হচ্ছে আমাদের টিমটা মাঠে এবং মাঠের বাইরে আমরা যেভাবে কাজ করছি এবারে খুব ভালভাবে কাজ এগুচ্ছে।

প্রশ্ন: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে নিয়ে কুমিল্লার মানুষের প্রতি মেসেজ কি?
নাফিসা কামাল: কুমিল্লাকে ছাড়া তো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স নয়। কুমিল্লার মানুষের বাইরে তো আমরা কাজ করতে পারি না। এবার আমরা কুমিল্লা নিয়ে অনেক কিছু চিন্তা করেছি। গতকালই আমাদের একটা মিটিং ছিলো যে কুমিল্লাতে ফ্যান ক্লাব করবো। প্রতিটা উপজেলায় এবার একটা করে ফ্যান ক্লাব হবে। ভিক্টোরিয়ান্সের অফিসিয়াল ফ্যান ক্লাব। এটা এখন পর্যন্ত কোন টিম করেন নাই। এতে আমার মনে হয় ফ্যানসদের মাঝে একটা প্রচার হবে এবং উৎসাহ বাড়বে। আর আমি আগামী ৩ তারিখে মিডিয়াদের সঙ্গে কথা বলার জন্য কুমিল্লা যাচ্ছি। মিডিয়ার সাথে মিট করবো। এছাড়া কুমিল্লাতে আমাদের একটা ইভেন্ট করার প্রোগ্রাম আছে। ২০১৫ সালে কনসার্ট যেভাবে করেছিলাম। দেশি-বিদেশী প্লেয়ার নিয়ে যেতে চাই কুমিল্লাতে। রেস্টের মধ্যে আমরা পুরো টিমকে নিয়ে কুমিল্লাতে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। ২০১৫ সালে যেভাবে কনসার্ট হয়েছে সেভাবে গানের শিল্পীদের নিয়ে এবং আমাদের পুরো টিমকে নিয়ে আমাদের কুমিল্লাতে একটা আয়োজন করার ইচ্ছা আসে। সবাই কনসার্টে আসে এবং আমাদের উৎসাহ দেয়।

প্রশ্ন: কুমিল্লার মানুষের সার্পোটটা চাচ্ছেন?
নাফিসা কামাল: কুমিল্লার মানুষের সাপোর্ট ছাড়া তো আমি চলতেই পারবো না। কুমিল্লার মানুষ সাপোর্ট খুবই ইম্পরটেন্ট আমাদের জন্য। কুমিল্লার মানুষের সাপোর্ট এবং দোয়া।

প্রশ্ন: প্লেয়ারদের প্রত্যেকের ব্যাপারে আপনার কনফিডেন্টটা কেমন? এবারের টিমটা কেমন করতে পারে?
নাফিসা কামাল: প্লেয়ারদের যেটা হচ্ছে, আমরা যখন টিমটা করেছি ফরেন প্লেয়ারর্সদের নিয়ে একটা প্ল্যান করে যে তারা এই সিজনটা আমাদের জন্য খেলবে। কিন্তু নানা কারণে, ইনজুরির কারণে তাদের নিজস্ব ক্যাজুয়েল সমস্যার কারণে সবাই নিয়মিত থাকতে পারছে না। আসা-যাওয়ার মধ্যে আছে। ওই আসা-যাওয়াটা আসলে আমার  জন্য স্যাড বেক ছিল । পাকিস্তানের প্লেয়াররা ১৭ তারিখের পরে জয়েন করবে। আফগানিস্তানের প্লেয়ারদের এর মাঝে যেতে হবে কিছুদিনের জন্য। আমরা ট্রাই করছি লাস্ট ২-৩ সপ্তাহতে এই গ্যাপটা ফুলফিল করার জন্য। এটার উপর আমাদের অনেক কাজ করতে হয়েছে। একজন প্লেয়ার চলে গেলে তার ব্যাকআপে কে থাকবে এটা নিয়ে কাজ করতে হয়েছে। মাঠে ৬জন প্লেয়ার খেলতে পারবে কিন্তু আমাদের টিমে আছে ১৩ জন ফরেন প্লেয়ার। সো, একদম ওয়ান ইস টু ওয়ান। একজন চলে গেলে তার ব্যাকআপে কে আসবে একদম ওভাবে আমাদের টিমটা করা আছে। অনেক চিন্তা করতে হয়েছে এটা পেছনে।

প্রশ্ন: ঢাকায় কি হচ্ছে ভিক্টোরিয়ান্সকে নিয়ে?
নাফিসা কামাল: ঢাকাতে ৮ তারিখে মিডিয়ার সাথে একটা প্রোগ্রাম আছে। আমাদের স্পন্সরদেরকে নিয়ে প্রোগ্রামটা হচ্ছে। সুতরায় এটা খুব ইম্পটেন্ট।  এটা ৮ তারিখে হবে। আর ৯ তারিখে আরেকটা হবে শুধু টিমদেরকে নিয়ে। ঢাকাতে তো নিয়মিত প্রোগ্রাম হতেই থাকে। আর জিতলে তো কোনো ব্যাপারই না। তখন তো প্রোগ্রাম আর প্রোগ্রাম।

প্রশ্ন: আপনি ভাবছেন যে সেই প্রথমবারের মত এবারও ট্রফিটা আপনারা পাবেন?
নাফিসা কামাল: আমরা কিন্তু ফিল করছি। আসলে ভিতর থেকে আমরা নিজেরা এটা ফিল করছি যে প্রথমবার যেভাবে যে উৎসাহ নিয়ে কাজ করেছিলাম এবং যে একটা উত্তেজনা ছিল আমাদের মাঝে এবারও তা আছে। গতবছর ঠিক তেমনটা ফিল করতে পারি নাই বিকজ আমাদের প্লেয়াররা খেলা খারাপ খেলছে।  কিন্তু এবার আমাদের মনের মাঝে কনফিডেন্ট আসছে আবার।

প্রশ্ন: কেন আবার কনফিডেন্ট ফিরে পেলেন?
নাফিসা কামাল: টিম ভালো হয়েছে তাই। টিম থেকে কনফিডেন্সটা আসে। যেহেতু টিমটা আমাদের শক্তিশালী হয়েছে। ভালো হয়েছে। আমাদের মনে হয় আমরা একটা ফাইট দিতে পারবো কাপের জন্য। আর ব্যাকআপ যেটা আছে আমাদের ম্যানেজমেন্ট। আমাদের কোচ সালাউদ্দিন স্যার ফেরত এসেছে। যিনি আমাদের চ্যাম্পিয়ন টিমের সাথে ছিলেন। আর বাকী কিছু সদস্য ফেরত এসেছে। সো আমার মনে হয় যে ইনশাআল্লাহ আমরা ভালো করবো এই আত্মবিশ্বাস আমাদের মাঝে কাজ করছে।

প্রশ্ন: তামিম ইকবাল তো চট্টগ্রাম দলে খেলেছেন। এবার কুমিল্লা দলে খেলছেন, এটাকে কেমন দৃষ্টিতে দেখছেন?
নাফিসা কামাল: এবার তো অনেক আইকনই চেঞ্জ হয়েছে। তামিম ইকবালের সাথে আমাদের মিউচুয়াল আনডাসটেন্ডিং হয়েছে। আমরা তাকে খুব বেশি ভাবে চেয়েছি এবং সেও আমাদের সাথে খেলতে চেয়েছে। খুব ভালো একটা আনডাসটেন্ডিং কাজ করছে। তামিমও এমন ফর্মে আছে যে আমাদের ফাস্ট চয়েস তামিমই ছিলো টিমে আনার। ছিলো তামিমকে আমাদের টিমে আনার। আর তামিমকে পেয়েছি বলে আমরা খুব খুশি।

প্রশ্ন: ধন্যবাদ আপনাকে। আমরা প্রত্যাশা করি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আবারও চ্যাম্পিয়ান হবে।
নাফিসা কামাল: আপনাদেরও সাপোর্ট দরকার। আপনাদের সবার দোয়া ও সাপোর্ট দরকার। টিম তো আপনাদেরই। কুমিল্লারই এই টিম।

প্রশ্ন: কুমিল্লাবাসীদের উদ্দেশ্যে কিছু বলার আছে?
নাফিসা কামাল: কুমিল্লাবাসীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে, আমরা এখানে কয়েকজন টিমের পেছনে কাজ করছি। মাঠে খেলছে ১১ জন প্লেয়ার। কিন্তু টিম আপনাদেরই। আপনাদেরই এই টিম। এই টিমকে নিয়ে আপনারা যে উৎসাহ ও আনন্দ অনুভব করেন সেটা দেখতে আমাদের ভালো লাগে। আমাদের সাথে থাকবেন। আমাদের জন্য দোয়া করবেন। আমরা আশা করি আমরা সবাই মিলে যেন অনেক বড় একটা সেলিব্রেশান করতে পারি।

সূত্রঃ কুমিল্লার কাগজ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: