বাংলাদেশ থেকে আকাশ পথে বিদেশগামী যাত্রীদের সোমবার (২০ জুলাই) থেকে করোনাভাইরাস পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে সরকার নির্ধারিত ১৬টি কেন্দ্রে নমুনা পরীক্ষা করে ফলাফল দেয়া হবে। এসব কেন্দ্র থেকে করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ থাকলেই বিমানে ওঠা যাবে। আগামী ২৩ জুলাই থেকে বাংলাদেশ থেকে ছেড়ে যাওয়া সকল বিমান সংস্থার যাত্রীদের ক্ষেত্রে এ সনদ বাধ্যতামূলক হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের একজন শীর্ষ দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, রাজধানীতে নমুনা সংগ্রহ করা হবে মহাখালীর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি মার্কেটে) স্থাপিত করোনা ল্যাবরেটরিতে। ঢাকার বাইরের ১৩টি জেলার সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহ করে সরকার নির্ধারিত ল্যাবরেটরিতে বিদেশগামী যাত্রীদের নমুনা পরীক্ষা হবে।

রোববার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, বিদেশগামী বাংলাদেশি নাগরিকদের মধ্যে যারা ঢাকা মহানগরীতে কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নমুনা প্রদান করতে চান, সোমবার (২০ জুলাই) থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ঢাকার সিভিল সার্জন অফিসের উদ্যোগে মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে অবস্থিত অস্থায়ী কোভিড-১৯ আইসোলেশন কেন্দ্রে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

ঢাকার বাইরে ১৩টি জেলায় সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জনদের তত্ত্বাবধানে একই দিন থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হবে। স্থান ও সময়সূচি সংশ্লিষ্ট জেলার সিভিল সার্জন অফিস থেকে জানা যাবে। যেসব জেলায় নমুনা সংগ্রহ করা হবে সেসব জেলাগুলো হলো- বরিশাল, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, কুমিল্লা, নারায়নগঞ্জ, খুলনা, কুষ্টিয়া, ময়মনসিংহ, বগুড়া, রাজশাহী, দিনাজপুর, রংপুর ও সিলেট।

কুমিল্লায় বিদেশগামীদের করোনা পরীক্ষার কন্ট্রোল রুমের নাম্বারঃ 01310026694

যাত্রীদের যাত্রার ৭২ ঘণ্টা আগে নমুনা দিতে হবে। নমুনা প্রদানের সময় পাসপোর্ট ও টিকিটের ফটোকপি জমা দিতে হবে এবং মূল পাসপোর্ট ও টিকিট প্রদর্শন করতে হবে। নমুনা সংগ্রহ কেন্দ্রে এসে নমুনা প্রদানের জন্য পরীক্ষার ফি হিসেবে প্রত্যেক যাত্রীকে সরকার নির্ধারিত সাড়ে ৩ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। সংগৃহীত নমুনা সরকারি ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হবে এবং যাত্রার ২৪ ঘণ্টা আগে রিপোর্ট প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জুলাই আন্তমন্ত্রণালয় সভায় বিদেশ গমনেচ্ছুকদের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) নেগেটিভ সনদ নিয়ে বিদেশ গমনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এরপর বিদেশগামী যাত্রীদের পরীক্ষা করানোর জন্য ১৬টি কেন্দ্র নির্দিষ্ট করে দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। তারা কিছু শর্তও নিধারণ করে দেয়।

বিমানে উঠার আগে এসব কেন্দ্র থেকে সকল যাত্রীর করোনা নেগেটিভ সনদ নেয়ার বাধ্যবাধকতার কথা জানিয়ে শনিবার (১৮ জুলাই) বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

এসব ক্ষেত্রে কয়েকটি শর্ত মানতে হবে যাত্রীদের

১. যাত্রীর করোনা পরীক্ষা যাত্রার আগের অন্তত ৭২ ঘণ্টার মধ্যে হতে হবে। অর্থাৎ, ৭২ ঘণ্টার আগে করা পরীক্ষার ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না, বা এর আগে নমুনা সংগ্রহ করা হবে না। যাত্রার ২৪ ঘণ্টা আগে অবশ্যই রিপোর্ট সংগ্রহের ব্যবস্থা করতে হবে।

২.নমুনা দেয়ার সময় পাসপোর্টসহ যাত্রীদের বিমান টিকিট দেখাতে হবে এবং পরীক্ষার অর্থ পরিশোধ করতে হবে।
কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট পরীক্ষাগার যে জেলায় অবস্থিত, সেখানকার সিভিল সার্জন অফিসে স্থাপিত পৃথক বুথে যাত্রীদের নমুনা দিতে হবে।

৩. নমুনা দেয়ার পর থেকে যাত্রার আগে পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট যাত্রীকে আইসোলেশনে থাকতে হবে।

৪. পরীক্ষার জন্য একটি ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। যারা ল্যাবরেটরিতে গিয়ে নমুনা দেবেন তাদের দিতে হবে ৩৫০০ টাকা। আর বাড়ি থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হলে ৪৫০০ টাকা দিতে হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: