মেয়ে শিশু জন্ম নেয়ায় কুমিল্লার মুরাদনগরে রাবেয়া নামে ১৯ দিন বয়সী এক শিশুকে খালের পানিতে ফেলে হত্যা করেছে পাষণ্ড মা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মা রত্না আক্তারকে (১৯) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) বেলা ১১টার দিকে মুরাদনগর উপজেলার টনকি ইউনিয়নের বাইড়া গ্রামের একটি খাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত শিশু রাবেয়া একই এলাকার কাতার প্রবাসী মজিবুর রহমানের একমাত্র মেয়ে। এ ঘটনায় নিহতের দাদা বাদী হয়ে সন্ধ্যায় বাঙ্গরা বাজার থানার হত্যা মামলা করেছেন।

নিহতের দাদা বাচ্চু মিয়া বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আমারা বাড়ির পাশের একটি জমিতে কাজ করতে যাই। কিছুক্ষণ পর রত্না আক্তারের চিৎকার শুনে বাড়ি গিয়ে শুনি রাবেয়াকে পাওয়া যাচ্ছেনা। পরে সবাই মিলে বিভিন্ন স্থানে তাকে খুঁজতে থাকি। সারা দিন কোথাও না পেয়ে সন্ধ্যায় বাঙ্গরা বাজার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি।

শুক্রবার সকালে বাড়ির পাশের খালে মরদেহ ভেসে উঠলে স্থানীরা পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, জিজ্ঞাসাবাদে নিহতের মা রত্না আক্তার পুলিশের কাছে স্বীকার করেন, প্রথম সন্তান মেয়ে হওয়ায় স্বজনদের অজান্তে বাড়ির পাশে খালে ফেলে দেনে তিনি। এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: