মহামারি করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা নিতে কুমিল্লায় প্রতিদিনই ক্রমন্বয়ে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। প্রথম ও দ্বিতীয় দিনের তুলনায় তৃতীয় দিন ছিল টিকাদান কেন্দ্রে উপচে পড়া ভিড়। মানুষের উপস্থিতি, ভিড় ও সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টি করতে টিকা কেন্দ্রগুলোতে দায়িত্বে থাকা স্বেচ্ছাসেবক সদস্যদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। কর্মকর্তা বলছেন, করোনাভাইরাসের টিকা নিতে আসা মানুষের ভিড় প্রতিদিনই বাড়ছে।

কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান জানান, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকাদানের তৃতীয় দিন ৩ হাজার ৮১৩ জন ব্যক্তি টিকা নিয়েছেন। তারমধ্যে ২৫৯৫ জন পুরুষ এবং ১২১৭ জন নারী।

তিনি আরও বলেন, কার্যক্রম উদ্বোধনের পর কুমিল্লার ২৪টি টিকাদান কেন্দ্রে তিন দিনে ৬ হাজার ৬৩৫ জন করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা নিয়েছেন। এরমধ্যে ৪ হাজার ৬১৪ জন পুরুষ এবং ২ হাজার ২০ জন নারী টিকা নেন।

এর আগে কুমিল্লায় প্রথম দিনের তুলনায় দ্বিতীয় দিনে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা নিতে আগ্রহীদের সংখ্যা বাড়ে। প্রথম দিনের তুলনায় দ্বিতীয় দিন টিকা নেওয়াদের সংখ্যা ছিল ৭শ’বেশি। টিকা কার্যক্রম শুরু হওয়ার দ্বিতীয় দিন কুমিল্লার ২৪টি টিকা কেন্দ্রে ১৭৩১ জন ব্যক্তি নিয়েছেন। এরমধ্যে পুরুষ ১২৩৫ জন এবং নারী ৪৯৬ জন টিকা নেন। প্রথম দিন ১ হাজার ৯১ জন ব্যক্তি টিকা নিয়েছিলেন। কুমিল্লা সদর হাসপাতালসহ ১৭ উপজেলার। এরমধ্যে পুরুষ ৭৮৪ জন এবং নারী ৩০৭জন করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা নেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার নিয়াতুজ্জামান জানান, কুমিল্লার জন্য প্রাপ্ত ২ লাখ ৮৮ হাজার ডোজ টিকা, ১ লাখ ৪৪ হাজার লোককে দুই ডোজের মাধ্যমে দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আশাকরি আগামী দিনগুলোতে মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার প্রবণতা আরও বাড়বে। রেজিস্ট্রেশন করে ডিনি আগে আসবেন তিনিই আগে টিকা নিতে পারবেন। আমরা নানাভাবে মানুষকে টিকা নিতে উদ্বুদ্ধ করছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: