নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার ১নং কালীর বাজার ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার ৫নং ওয়ার্ডস্থ বুধুইর গ্রামের মৃত  আবু তাহের মিয়ার ছেলে রকিবুল ইসলাম ওরফে রকি (২৮) একই এলাকার জনৈক সৌদি আরব প্রবাসী আপন চাচাত ভাই এর মেয়ে সৌদিআরব প্রবাসীর স্ত্রী তানিয়া (২৩) (ছদ্মনাম) কে ব্ল্যাকমেইল করে ধর্ষণ ও  ধর্ষণের  ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারন করে ৩/৪ বৎসর জাবত হুমকি দিয়ে প্রবাসী পরিবার ও ধর্ষীতার নিকট থেকে  বিভিন্ন সময়  প্রায় ২০ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগত ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় ধর্ষিতার চাচা রকি। এর পর আবার দুই লক্ষ টাকার জন্য মেয়েকে চাপ দেয়।  টাকা না দেয়ায় মেলামেশার সময় ধারনকৃত অনৈতিক কর্মকান্ডের ছবি মোবাইলে মেয়ের মা বাবা এবং ভাতিজীর স্বামীর কাছে এবং এলাকার কয়েজনের কাছে ছড়িয়ে দিলে ঘটনা প্রকাশ পায় এবং এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়।
এরপর এলাকার জনপ্রতিনিধি স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং গন্যমান্যদের অবহিত করলে চেয়ারম্যানের সহায়তায় গত ১৭/০৮/১৭ইং তারিখে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের হয় রকি ও তার বড় ভাই হাক্কানী ওরফে ডন কে আসামী করে। মামলার পর ২নং আসামী ডন(৩০) কে গ্রেপ্তার করলেও গা  ঢাকা দেয় ধর্ষক রকিবুল। পালিয়ে থাকা রকি মোবাইলে নানা,ভাবে হুমকি দিতে থাকে প্রবাসী পরিবারটিকে মামলা তুলে নিতে। অন্যথায় হত্যা হুমকিও প্রদাণ করে। মামলা তুলে না নেয়ায় ধর্ষণের ও অনৈতিক কর্মকান্ডে  ছবি ছড়িয়ে দেয় গোটা এলাকায়।  এর পর গত ১৭/০৯/১৭ইং তারিখে গ্রেপ্তার হয়। এবং গত ০২/০৯/১৭ইং ধর্ষক ও এলাকার চিহ্নিত লম্পট রকিকে জিগাসাবাদের জন্য মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর রুবেল ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। গতকাল শনিবার তাকে জেল হাজত থেকে রিমান্ডে আনেন নাজির বাজার  ফাঁড়ি পুলিশের আই সি ইন্সপেক্টর রুবেল এবং প্রমানাদি সহ ব্যবহৃত মোবাইল ও মেমোরিকার্ড উদ্ধার করে ধর্ষক রকির স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে তার বাড়ী থেকে।

ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসীদের বরাত দিয়ে জানা যায় আসামী রকি এলাকার চিহ্নিত অপরাধী এবং বখাটে মাদকসেবী। তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এবং মামলা রয়েছে। গ্রামের বেশকিছু মুরুব্বী অভিযোগ করে প্রতিবেদক কে জানান এই রকি  ও তার ভাই হাক্কানী এলাকায় চুিরি ছিনতাই মাদকসেবন ইভটিজিং সহ নানান অপরাধের সাথে যুক্ত।

এবিষয়ে কোতোয়ালি থানাধীন নাজিরা বাজার ফাঁড়ী পুলিশের আই সি ইন্সপেক্টর মাহমুদুল হাসান রুবেল জানান আসামী রকি জিগাসাবাদে দোষ স্বীকারসহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। আসামীকে রিমান্ড শেষে আগামীকাল সোমবার কোর্টে প্রেরণ করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: