সেতুটির কাজ শেষ হয়েছে মাস দুয়েক আগে। কিন্তু নেই সংযোগ সড়ক। ফলে সেতু পার হতে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বানানো সাঁকো ব্যবহার করছেন স্থানীয় লোকজন। কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার রাজামেহার ইউনিয়নে উত্তরপাড়া বড়বাড়ি সড়কে নির্মিত এ সেতু এখন মানুষের দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জানা গেছে, এলজিইডির অধীনে ৩৮ ফুট দৈর্ঘ্য ও ২৪ ফুট প্রস্থের এ সেতুটির নির্মাণ খরচ ধরা হয়েছে ৩৮ লাখ টাকা। চলতি বছরের মার্চে সেতুটির কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স মোসলেহ উদ্দিন খান এন্টারপ্রাইজ। দুই মাস আগে এর কাজ শেষ হয়। কিন্তু সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়কের কাজ না করেই চলে যান ঠিকাদার।

স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল আউয়াল, অটোচালক নয়ন ও সুমন জানান, সংযোগ সড় না থাকায় ভোগান্তিতে এখানকার ১০ গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ। তবে চলাচলের জন্য পরিত্যক্ত বৈদ্যুতিক খুঁটি দিয়ে সাঁকো বানিয়েছেন গ্রামের কয়েকজন। এ খুঁটি দিয়েই এখন সেতু পার হচ্ছেন সবাই।

ইউপি সদস্য মো. আবদুল মতিন সরকার বলেন, ঠিকাদারের গাফিলতিতে মানুষ এমন কষ্ট পাচ্ছেন। কাজ শুরুর পর থেকেই ফাঁকিবাজি করছেন ঠিকাদার। তিনি লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে কয়েক দফা কাজ বন্ধ করে রাখেন।

বুটিয়াকান্দি মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা এমদাদুল হক বলেন, এ সড়কটি মাদায়াইয়া হয়ে মুরাদনগর উপজেলা যাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। সেতুটির সংযোগ সড়ক না করায় দুর্ভোগে পড়েছেন এখানকার বাসিন্দারা।

ঠিকাদার মোসলেহ উদ্দিন খান ও নাজমুল হাসান বলেন, সেতুটি নির্মাণে অনেক লোকসান হবে। মাটি সংকটের কারণে সংযোগ সড়ক করা হয়নি। তবে দু-একদিনের মধ্যে এ কাজটি করে দেওয়া হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: