কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে ফের আসছে টোকেন কামাল !

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে টানা ৫ বছর টিআই (ট্রাফিক ইন্সপেক্টর) পদে কর্মরত থাকার পর বদলীর মাত্র দেড়মাসের মাথায় একই পদে ফের যোগদান করছে যানবাহন টোকেন বাণিজ্যের খলনায়ক টিআই কামাল ওরফে কামাল উদ্দিন।

কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে টোকেন কামাল আসছে! এমন খবরে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেছেন এখানকার রেন্ট-এ-কার চালক সমিতি, সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক-মালিক সমিতি, ট্রাক্টর চালক, পিকআপ চালক ও ইজিবাইক চালকরা। কারণ গত দেড় মাস টোকেন বাণিজ্যের কবল থেকে মুক্ত থাকা ওইসব যানবাহন মালিক-চালকরা হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেও আবারো তাদের ওপর টিআই কামালের টোকেনকেন্দ্রিক চাঁদাবাজির খড়গ জেঁকে বসবে এমন আশঙ্কা করছেন। ওইসব বাহনের মালিক চালকরা কুমিল্লায় টিআই কামালের যোগদানের বিষয়টি বাতিল করার জন্য পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে – ২০১৩ সালে কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে টিআই পদে যোগদান করেন কামাল উদ্দিন। যোগদানের অল্প সময়ের মধ্যে তিনি কুমিল্লায় নির্দিষ্ট কিছু যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে চালু করেন টোকেন। ভাড়ায় চালিত কার, মাইক্রোবাস, পিকআপ, সিএনজি অটোরিকশা, ইজিবাইক ও ট্রাক্টর চলাচলের ক্ষেত্রে প্রতিমাসে টোকেনের মাধ্যমে নির্ধারিত হারে চাঁদা পরিশোধ করতে হতো টিআই কামালকে। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৭ সালের নভেম্বর পর্যন্ত টিআই কামাল টোকেন চাঁদাবাজির মাধ্যমে ওইসব যানবাহন মালিক-চালক থেকে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ট্রাফিক বিভাগের কিছু অসাধু সদস্য দিয়ে কামাল গড়ে তুলেছিল টোকেন চাঁদাবাজির সিন্ডিকেট। সময়মতো টোকেনের চাঁদা পরিশোধ না করলে চালকরা তার রূঢ় আচরণের শিকার হতো। কেবল ওইসব বাহনের চালকই নয়, মটরসাইকেল চালকরাও নানাভাবে হয়ারনীর শিকার হতো।

এবছরের নভেম্বরে টিআই কামাল বদলি হোন চট্টগ্রাম জেলা ট্র্যাফিকের সিতাকুন্ডে। সেখানে মাত্র কয়েকদিন থাকার পর লবিং করে টোকেনের টানে কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে টিআই পদে ফের যোগদান নিশ্চিত করেন কামাল। কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে আবারও টোকেন কামাল আসছে এমন খবরে এখানকার যানবাহন সেক্টরে টোকেন চাঁদাবাজির বিষয়টি চালু হওয়ার আশঙ্কা করছেন চালকরা। ওইসব যানবাহন সংগঠনগুলো কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগে টিআই টোকেন কামালের যোগদান বাতিল করার দাবীতে প্রতিদিনই মিছিল, মিটিং করছে। তারা কুমিল্লা ট্রাফিক বিভাগকে টোকেন কামাল মুক্ত রাখার দাবী জানিয়ে বলেছেন, ট্রাফিক পুলিশের ওই চাঁদাবাজ কর্মকর্তা ফের কুমিল্লায় যোগদান করলে এখানকার যানবাহন সেক্টর অস্থির হয়ে ওঠবে। আর টোকেন চাঁদাবাজির এক অরাজক পরিবেশ সৃষ্টি হবে। যানবাহন চালক-মালিকরা টিআই টোকেন কামালের হাত থেকে এখানকার যানবাহন সেক্টরকে মুক্ত রাখার জন্য পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।

যানবাহন চালক মালিকরা জানান, ইতিমধ্যে কামাল অনেক যানবাহন মালিক চালককে ফোনে জানিয়ে দিচ্ছেন তিনি আসছেন। যাতে সবকিছু আগের মতো চলে।

এদিকে সম্প্রতি কুমিল্লা কান্দিরপাড়ে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন কার্যক্রম চালু থাকা সত্ত্বেও এবং পুলিশ সুপারের নির্দেশ উপেক্ষা করে কুমিল্লা জেলা ট্রাফিক অফিসে আগের মতো কেস বইয়ের মাধ্যমে মামলা দায়ের করে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  

ফেসবুকে আমরাঃ