জাগ্রত মানবিকতার প্রথম বর্ষপূর্তি উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ এক বছর আগে জন্ম নেয়া সামাজিক ও মানবিক সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে কুমিল্লা টাউন হলে রক্ত দাতাদের সম্মাননা, আলোচনা ও কনর্সাটের আয়োজন করেছে।

কুমিল্লা সদর আসনে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার এর বড় কন্যা তাহ্সিন বাহার সূচনা জাগ্রত মানবিকতার প্রতিষ্ঠাতা। বর্তমানে তিনি সংগঠনটি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এ পর্যন্ত দেড় হাজার মুমূর্ষ রোগীকে রক্ত দিয়েছে সংগঠনটির সদস্যরা। এছাড়াও সুবিধা বঞ্চিতদের সহযোগীতা পড়ালেখা খরচ বহন, নারীদের আইনি সহায়তা, হেল্থ ক্যাম্প সহ বেশ কিছু মানবিক কাজ পরিচালনা করছে সংগঠনটি।

বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাগ্রত মানবিকতার প্রধান পৃষ্ঠপোষক সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। পিতার আদর্শের পথে কন্যাও আজ নিজেকে উৎসর্গ করেছেন সুবিধা বঞ্চিত সাধারণ মানুষের জন্যে। মেয়ের এমন কর্মকান্ডে পিতাও আজ দারুন উজ্জীবিত।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি বাহার বললেন আমার রক্তের সূচিকে সাধারণ মানুষের জন্য উৎসর্গ করলাম। তিনি আরো বলেন, আমার অবর্তমানে কুমিল্লাবাসী আপনারা সূচিকে পরিচালনা করবেন। ছোট বেলা থেকে আমি যেভাবে খেটে খাওয়া মানুষের জন্যে কাজ করেছি একজন শ্রমিকের ডাকে যেভাবে আমার ঘুম ভেঙ্গেছে ঠিক সেভাবে যেন সূচি পরিচালিত হয়। সর্বোচ্চ সম্পর্ক রক্তের এ বন্ধন কুমিল্লা ছাড়িয়ে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের কাছে পৌছে যায়, সেভাবেই আমার মেয়ে মানুষের পাশে থেকে কাজ করবে আমি এটাই প্রত্যাশা করি। এমপি বাহার বলেন আশার আলো নিয়ে মুমূর্ষ মানুষের পাশে দাড়াবে সূচি এটাই হোক তার জীবনের একমাত্র উদ্দেশ্য।

সমাজ সেবামুলক সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান উৎসবে পরিনত হয়। সোমবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা টাউনহল মাঠে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন হয়। উৎসবে প্রধান অতিথি কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার আরো বলেন, জাগ্রত মানবিকতা শুধু কুমিল্লার সংগঠন নয়। এই সংগঠনের সীমানা কোথায় কেউ কল্পনাও করতে পারবে না। আমার মেয়ে সূচনা ছোট বেলা থেকেই মানবিক মনের অধিকারি। ছোটবেলা সূচনা ঘুম থেকে উঠে দেখেছে তার বাবা খালি গায়ে কোন রিক্সা চালকের সাথে কথা বলছে, তার সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছে। ওই সময় থেকেই তার ভিতরে মানবিকতার সৃষ্টি হয়েছে। আমি পৌরসভা নির্বাচন করতে গিয়ে বলেছিলাম যদি জয় লাভ করি তাহলে কুমিল্লা পৌরসভার দরজা সকলের জন্য খোলা, জয় লাভ করতে না পারলেও আমার বাড়ির দরজা সকলের জন্য খোলা থাকবে। সেই দরজা দিয়েই সূচনা জাগ্রত মানবিকতাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে বিশিষ্ঠ নারী নেত্রী কুমিল্লা ডায়াবেটিক হাসপাতালের সভাপতি মেহেরুননেসা বাহার সভাপতিত্ব করেন। মেয়ের এমন মানবিক কাজে তিনিও আবেগে আপ্লুত। তিনি বলেন একজন মানুষের যখন রক্তের প্রয়োজন হয় তখন তার মতো অসহায় যেন আর একটি মানুষও থাকে না। রক্তের জন্য দিশেহারা হয়ে ঘুরতে থাকে। তিনি বলেন ঠিক তখনি জাগ্রত মানবিকতার মত সংগঠনগুলো সেই অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাড়ায়। তিনি মেয়ে সূচির এই মানবিক কাজের সফলতা কমনা করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হামদার্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড. আব্দুল মান্নান, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মোঃ শাহ আবিদ হোসেন, সিভিল সার্জন মোজিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহিন ইমন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জাগ্রত মানবিকতার প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারন সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা। অনুষ্ঠানে রক্তদাতাদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। পরে বিভিন্ন শিল্পিদের গান পরিবেশন করা হয়।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ