কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে খবির আহমেদ নামে এক অসহায় রিক্সা চালকের বসত ঘর আগুনে পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার রাত অনুমান ১০ ঘটিকার সময়। তবে কিভাবে আগুন লেগেছে তার সঠিক কারণ কেউ বলতে পারেনি। পেটের দায়ে খবির আহমেদ চট্টগ্রামে রিক্সা চালাতো। গত ৩ দিন পূর্বে ঘরে তালা দিয়ে খবির আহমেদের স্ত্রী ও তিন মেয়ে চট্টগ্রাম চলে যায়।

গত রবিবার রাতে বসত ঘর পুড়ে যাওয়ার খবর শুনে খবির আহমেদ ও তার পরিবার গ্রামের বাড়িতে চলে আসে। খবির আহমেদের বাড়ি মনোহরগঞ্জ উপজেলার ঝলম দক্ষিণ ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামে। স্ত্রী ও ৩ মেয়ে নিয়ে করোনা মহামারিতে খুব কষ্টে দিনযাপন করছিলো খবির মিয়া। একটি মাত্র বসত ঘর ছাড়া তেমন কিছুই নাই তার। ওই ঘরটা ছিলো তার স্বপ্ন। বর্তমানে তার থাকার কোন ব্যবস্থা নেই।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. ওয়াসিম, উপ সহকারি প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ, পিআইও অফিসে কর্মরত ওমর ফারুক, রুবেল হোসেন, ঝলম দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আমির হোসেন মন্টু, ইউপি সদস্য শহীদ উল্লাহ, ঝলম দক্ষিণ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলামসহ আরো অনেকে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: