নিজস্ব প্রতিবেদকঃ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দূর্ণীতি মামলায় ৮ ফেব্রুয়ারির রায় প্রসঙ্গে সাবেক জ্বালানী উপদেষ্টা ও দৈনিক আমারদেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহুমুদুর রহমান বলেন, এ মামলা সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা। সরকার ভিন্নমত ও বিরোধী দলকে ও বিচারবিভাগকে নিয়ন্ত্রন করতে চায়। সেজন্যই বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা ভিত্তীহীন জালিয়াতি মামলা দায়ের করেছে এবং সে মামলায় একটি প্রহসনের রায় দিতে চাচ্ছে তারা। এর মূল উদ্দেশ্য হল বিএনপিকে আন্দোলনের মাঠ থেকে বাইরে রাখা।

তিনি বলেন, বিএনপির এখানে ভুলভ্রান্তি আছে। যেমন এটা রাজনৈতিক মামলা তাই রাজনৈতিক মামলার মোকাবেলা হবে রাজনৈতিকভাবে। এবং সেটা রাজপথেই হওয়া উচিত। বিএনপির সময় এসেছে গত কয়েকবছরে তাদের ব্যর্থতা বিবেচনা করে নতুনভাবে জনগনকে সাথে নিয়ে আবার এদেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা।

সোমবার একটি মানহানি মামলায় জামিন চাইতে এসে কুমিল্লার আদালতে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

মানহানি মামলায় কুমিল্লার আদালতে জামিন পেয়েছেন দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান। কুমিল্লার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেমায়েত উদ্দিনের আদালতে তিনি জামিন পান। এর আগে তিনি এই মামলায় হাইকোর্টে ৭জানুয়ারি ৮সপ্তাহের জামিন লাভ করেন।

মামলাটি দায়ের করেন কুমিল্লা শহর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ জিয়াউল হাসান চৌধুরী সোহাগ। বঙ্গবন্ধুর পরিবার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কুটুক্তি করার অভিযোগে ২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর তিনি এক হাজার কোটি টাকার মানহানির এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়- ২০১৭সালের ১ ডিসেম্বর ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক কাউন্সিল (বিডিসি) আয়োজিত ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে গণ মাধ্যমের ভূমিকা’- শীর্ষক অনুষ্ঠানে মাহমুদুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র নয়, শুধু মাত্র ভূ-খন্ড আর জনগণ থাকলেই স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হয় না, বাংলাদেশ এখন ভারতের কলোনি, শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমকে হত্যা করেছে, কবর দিয়েছে।

আসামি পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট নাজমুস সাদত,অ্যাডভোকেট কামরুল হায়াত খান ও অ্যাডভোকেট আলী আক্কাসসহ অনেকে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: