কুমিল্লার লাকসামে সিয়াম (১২) নামের ৫ম শ্রেণি পড়–য়া এক স্কুলছাত্রকে ৩ তলা ভবনের ছাদ থেকে ফেলে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। গত ৭ জুলাই মঙ্গলবার লাকসাম পৌর শহরের নশরতপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত সিয়াম ওই এলাকার ভাড়াটিয়া আব্দুল হাকিমের ছেলে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, চাকরির সুবাদে লাকসাম পৌর শহরের নশরতপুর এলাকায় সপরিবারে বসবাস করেন আব্দুল হাকিম। ওই এলাকার আবুল খায়ের তোতা মিয়ার ছেলে রিয়াদ হোসেন (২০) বিভিন্ন সময় নানা অজুহাতে সিয়ামকে মারধর করতো। বিষয়টি বেশ কয়েকবার রিয়াদের পরিবারকে জানিয়েছেন সিয়ামের পিতা আব্দুল হাকিম। গত ৭ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে পাখি ধরার লোভ দেখিয়ে সিয়ামকে কুমিল্লা-নোয়াখালী মহাসড়কের চাঁদপুর রেলগেইট সংলগ্ন গালফ হোটেলের ছাদে নিয়ে যায় রিয়াদ ও তার বন্ধু সুজন। এক পর্যায়ে তারা সিয়ামকে ধাক্কা দিয়ে ছাদ থেকে ফেলে দেয়। আশপাশের কয়েকটি সিসিটিভি ক্যামেরায় ঘটনাটি রেকর্ড রয়েছে। আহত সিয়ামকে তাৎক্ষণিক কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে অবস্থা আশংকাজনক দেখে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা।

সিয়ামের পিতা আব্দুল হাকিম জানান, ‘আমার ছেলেকে হত্যার উদ্দেশ্যেই তারা ৩ তলা ছাদ থেকে ফেলে দিয়েছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।’ এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত সুজন আত্মগোপনে রয়েছে। একাধিকবার চেষ্টা করেও অভিযুক্ত রিয়াদ ও তার অভিভাবকদের বক্তব্য নেয়া যায়নি।

লাকসাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, ‘এখনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: