কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে বিশেষ নির্বাচনী মহড়া করেছে জেলা পুলিশ। এতে অংশ নিয়েছেন ঢাকা থেকে আসা আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যরাও।

সোমবার (৬ জুন) বিকেলে এ মহড়াটি পুলিশ লাইন্স থেকে বের হয়ে ফৌজদারী, ভাটপাড়া, বিষ্ণুপুর, শাসনগাছা, রাণীর বাজার, সালাউদ্দিন মোড় হয়ে চকবাজার, মুরাদপুরসহ বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে পুনরায় পুলিশ লাইন্সে ফিরে আসে।

জেলা পুলিশ সূত্র জানায়, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের নিরাপত্তায় জেলা পুলিশের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ঢাকা থেকে আসা এপিবিএন সদস্যরা। নির্বাচনকালে তারা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের অধীনে এবং স্বতন্ত্রভাবে নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন।

মোবাইল টিম ও স্ট্রাইকিং ফোর্স, বিজিবির টহল টিম, রিজার্ভ ফোর্স ও ভ্রাম্যমাণ আদালত নির্বাচনের সময় সার্বক্ষণিক মাঠে থাকবে। সবমিলিয়ে ছয় হাজারের বেশি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন বলেও জানা গেছে। আইনশ্খৃলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে থাকবে বুলেট প্রুফ আরমোরেড পারসোনাল ক্যারিয়ার (এপিসি) ও জলকামান গাড়ি। ভোটের দিন কুসিক এলাকার আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ ও নির্বাচনী পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে নগরীতে প্রবেশ পথে মোতায়েন থাকবে পুলিশের ৭৫টি চেকপোস্ট ও ১০টি পিকেট টিম। এছাড়া বর্তমানে নগরীতে পুলিশের ২১টি টহল টিম ও ১৫টি স্থানে চেকপোস্ট রয়েছে।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম তানভীর আহমেদ বলেন, কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে আমরা প্রতিটি ভোটকেন্দ্রকেই সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করবো। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে নির্দিষ্ট সংখ্যক পুলিশ, এপিবিএন, আরআরএফ সদস্য ও আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। ভোটের দিন নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে ভোটকেন্দ্রসহ পুরো নগরী। এরই অংশ হিসেবে আমরা সোমবার পুরো কুমিল্লা নগরীজুড়ে একটি মহড়ার আয়োজন করি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: