কুমিল্লার বরুড়ায় আমড়াতলী পশ্চিম বাজার বকুলগাছ তলা বাতাইছড়ি পুরান বাজার সড়কে দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে মানুষ ও যানবাহন। সংস্কার বঞ্চিত সাড়ে তিন কিলোমটিার সড়ক ও কালভার্টটি কার অধীনে? এ নিয়ে এলজিইডি-সওজ’র মধ্যে চলছে টানাটানি।

স্থানীয়রা জানায়, আমড়াতলী পশ্চিম বাজারের তিনশ গজ উত্তরের কালভার্টটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। এছাড়া সড়কটিও চলাচলের অনুপযোগী। এ সড়ক দিয়েই বরুড়া থেকে কুমিল্লা শহরে যাতায়াত করে শতাধিক গ্রামের মানুষ ও ভারী যানবাহন। সড়কের সাড়ে তিন কিলোমিটার অংশের কার্পেট ওঠে যাওয়ায় ও সাতবাড়িয়ার কালভার্টটি ভেঙে যাওয়ায় রাতের আঁধারে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে।

সিএনজি চালক শের আলী জানান, দুই বছর ধরে তিনি এ সড়কে চলাচল করছেন। এখন পর্যন্ত সড়ক ও কালভার্ট সংস্কার করা হয়নি। এ সড়কে চলাচলে প্রায়ই দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

শিলমুড়ী (উত্তর) ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসহাক জানান, সড়কটি ৬-৭ বছর ধরে ভাঙা পড়ে আছে। কালভার্টও ভেঙেছে দেড় বছর আগে। মানুষের ভোগান্তি কমাতে ইউপি কার্যালয় থেকে সড়কে ইট বসানো হয়েছে। সংস্কারের বিষয়টি কয়েকবার তুলে ধরা হয়েছে।

বরুড়া উপজেলা প্রকৌশলী ফুয়াদ আহাম্মেদ জানান, সড়কটি সংস্কারের বিষয়ে জেলা প্রকৌশল অধিদফতরে লিখিত জানানো হয়েছে। পরবর্তীতে জানা গেছে সড়ক ও কালভার্ট এলজিডি’র আওতায় নেই। বর্তমানে তা সওজ’র আওতায় রয়েছে।

সওজ কর্তৃপক্ষ বলছে, বরুড়ার ওই সড়ক ও কালভার্ট কাদের আওতায় আছে জানা নেই। সওজ’র আওতায় থাকলে দ্রুত সংস্কারের ব্যবস্থা করা হবে।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ