ডেস্ক রির্পোট।। কুমিল্লার লাকসামে এক স্কুল ছাত্রীর বিয়ের আগেসন্তান প্রসবের কয়েক দিনের মাথায় অন্যত্র ওই নবজাতককে ৪০ হাজার টাকায় বিক্রির সংবাদ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে লাকসাম পৌরসভার উত্তর পশ্চিমগাঁও গ্রামে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,লাকসাম পৌরসভার উত্তর পশ্চিমগাঁও এলাকার এক স্কুল ছাত্রী একই এলাকার মৃত.নেয়ামত উল্যাহর ছেলে আবদুল কুদ্দুছের সাথে অনৈকিত কাজে জড়িয়ে আন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় সমালোচনা শুরু হলে ওই ছাত্রীর বাদী হয়ে গত ১৮ আগষ্ট কুমিল্লার আদালতেনারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর থেকে আবদুল কুদ্দুছ আত্মগোপনেচলে যায়। এর কিছুদিন পর ওই স্কুলছাত্রী একটি পুত্র সন্তান জন্ম দেয়। সন্তান জন্মের কয়েকদিন পর পার্শ্ববর্তী ফতেপুর গ্রামের প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রীর নিকট স্ট্যাম্পের মাধ্যমে নবজাতকটি কে ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়।

প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রী জানায়, আমার বিয়ের কয়েক বছর পার হলেও কোন সন্তান নেই। তাই মা হওয়ার সাধ মিটাতে নবজাতকটিকে ক্রয় করে নিয়েছি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গৌবিন্দ কুমার শর্মা বলেন, নবজাতক বিক্রির বিষয়টি জানা নেই। মামলা চলাকালে বাচ্চা বিক্রির সুযোগ নেই। তবে মামলার আলামত হিসাবে আদালত চাইলে ওই বাচ্চাকে হাজির করা হবে।

লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা ওসি নিজাম উদ্দিন বলেন,আদালতে মামলার পর নবজাতকটির ডিএনএ পরিক্ষা করা হয়েছে। বিক্রির বিষয়টি আমার জানা নেই