ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা অঞ্চলে এক যুগে বন্ধ হয়েছে ১৩টি রেল স্টেশন। এ সব স্টেশনের প্লাটফর্মে এখন ধান মাড়াই ও গরু বাঁধার কাজ চলছে। কোথাও বেদখল হচ্ছে রেলওয়ের সম্পত্তি।

স্টেশন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সংশ্লিষ্ট এলাকার যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছেন। এগুলোর কোনোটিতে ট্রেন থামলেও স্টেশন বন্ধ থাকায় বিনা টিকেটে ভ্রমণ করেন যাত্রীরা। ফলে রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।

বন্ধ স্টেশনগুলোর মধ্যে রয়েছে, লাকসাম-নোয়াখালী রেল সড়কের দৌলতগঞ্জ, খিলা, বিপুলাসার, বজরা ও মাইজদী। লাকসাম-চট্টগ্রাম রেল সড়কের নাওটি। লাকসাম-আখাউড়া রেল সড়কের আলী শহর, ময়নামতি ও রাজাপুর। লাকসাম-চাঁদপুরের শাহতলী, মৈশাদী, বলাখাল ও শাহরাস্তি। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, অধিকাংশ রেলস্টেশন বন্ধ হয়েছে জনবল সংকটের কারণে। এছাড়া ট্রেনে যাত্রী সেবার মান নিম্নমুখী হওয়ায় যাত্রীরা রেল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার খিলা রেলস্টেশন এলাকায় সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, স্টেশনটি এক দশক ধরে বন্ধ। খিলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম জানান, খিলা রেলস্টেশনটি বন্ধ থাকায় বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

রেলওয়ে কুমিল্লার ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী (পথ) লিয়াকত আলী মজুমদার বলেন, ‘স্টেশনমাস্টার ও জনবল সংকটের কারণে স্টেশনগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। স্টেশনমাস্টার নিয়োগ হলে এগুলো পুনরায় চালু হবে।’

সূত্রঃ বিডিপ্রতিদিন