ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় তৃতীয় শ্রেণিতে পড়–য়া এক শিশু ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত শিশুটির নাম মেহেদী হাসান (১০)। সে কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার হালিমানগর এলাকার সাতরাচম্পকনগর গ্রামের প্রবাসী আলমগীর হোসেনের ছেলে এবং নর্থ সাউথ চাইল্ড একাডেমীর তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্র্থী।

গতকাল শনিবার রাত ৯টায় বাসার পাশে ডুবায় তার লাশ পায় স্বজনরা। ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাকে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা।
নিহতের চাচা আব্দুল হান্নান জানান, মেহেদী হাসান পাশের বাড়ির বিউটি আক্তারে নিকট প্রাইভেট পড়তো। প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল রাত ৭টায় প্রাইভেট পড়তে যায় মেহেদী। রাত সাড়ে আটটায় বাসায় না ফেরার কারণে শিক্ষকের বাসায় খোজ করে জানতে পারে শিক্ষক বিউটি শিশুটিকে গেইটের ভেতরে দিয়ে এসেছে। প্রায় আধা ঘন্টা খোজাখুজির পর তাকে বাড়ির পাশে ডুবায় গলাকাটা ও ঘাড়ে ৭/৮টি কুপসহ রক্তাক্ত অবস্থায় নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখে । সেখান থেকে স্বজনরা দ্রুত কুমেক হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। শিশুটিকে দেখার জন্য হাসপাতালে উৎসুক জনতা ভিড় করে।

তিনি আরো জানান, কিছুদিন পূর্বে তাদের বাসায় মোবাইল টাকা পয়সা সহ স্বর্ণালংকার চুরি হয়েছি। সেই ঘটনার সাথে হয়তোবা এই ঘটনার সূত্রপাত থাকতে পারে।

কুমিল্লা কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আনোয়ারুল হক জানান, আমরা বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নেওয়ার চেষ্টা করছি। কিভাবে কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখছি। বর্তমানে শিশুটির মরদেহ কুমেক হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে। তদন্তসাপেক্ষে বিস্তারিত জানা যাবে। এই পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি।