ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্বা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার এমপি বলেছেন, ৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর হত্যার পর কুমিল্লা শহরে ওয়ার্ডে ঘুরে সংগঠন তৈরী করেছি। তখন আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ করা মানুষ পাওয়া কঠিন ছিল। আজকে যেমন আমাকে ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে রাজনীতি করতে হচ্ছে সেদিন ষড়যন্ত্র ছিল। যারা আমার বিরূদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছিল তারা আজ রাজনৈতিক দেওলিয়ায় পরিনত হয়েছে। ২৩ বছর দলে পদ বঞ্চিত ছিলাম। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুত হই নি। যখনই প্রয়োজন হয়েছে দলের জন্য নেত্রীর জন্য জীবন বাজি রেখে রাজপথে নেমেছি। শত ষড়যন্ত্র করেও শেখ হাসিনার হৃদয় থেকে আমাকে মুছে দিতে পারেনি। আজ কুমিল্লার ঘরে আওয়ামী লীগ,যুবলীগ ,ছাত্রলীগ ,স্বেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগ তৈরী হয়েছে। কুমিল্লা আজ শেখ হাসিনার ঘাঁটিতে পরিনত হয়েছে। আমরা নেতা বানাবো মানুষের জন্য কাজ করার জন্য। দলের পদ ভাঙ্গিয়ে কারো উপর নির্যাতন করা যাবে না।দলের পদ ব্যবহার করে ভিজিটিং কার্ড ছাপানো যাবে না। দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ মানুষের উপর জুলুম-নির্যাতন করলে দল থেকে নাম কাটা যাবে।

>>আরো পড়ুনঃ  নেতাকর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত সদর দক্ষিণ আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক

হাজী বাহার এমপি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দেওয়া হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ আজ সকল সূচকে পাকিস্তান থেকে এগিয়ে রয়েছে। বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে হলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আগামির ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিবে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। কুমিল্লার আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনকে ২০৪১ সালের চ্যালেন্স মোকাবেলা উপযোগী করে সুসংগঠিত করতে চাই।

গতকাল শুক্রবার রাতে নগরীর কাপ্তানবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মহানগর ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাজী বাহার এমপি এসব কথা বলেন।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী আরফানুল হক রিফাত এর সভাপতিত্বে ওই কর্মীসভায় সভায় বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এড.জহিরুল ইসলাম সেলিম, আবদুল আলিম কাঞ্চন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল হাই বাবলু, চিত্ত রঞ্জন ভৌমিক, আদর্শ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড.আমিনুল ইসলাম টুটুল, মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মীর্জা মো.কোরেশী, মহানগর যুবলীগের আহবায়ক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক সাদেকুর রহমান পিয়াস,মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক আবদুল আজিজ শিয়ানুক প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য গোলাম মো.সিদ্দিকী পলিন।

>>আরো পড়ুনঃ  ময়নামতি ইউনিয়ন বিএনপির পকেট কমিটির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও তৃনমূল কমিটি গঠন

এসময় আদর্শ সদর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক তারিকুর রহমান জুয়েল,মহনগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এড.আমজাদ হোসেন,প্রচার সম্পাদক জহিরুল কামাল, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সাদেকুর রহমান রানা, মহানগর আওয়ামী লীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর সরকার মাহমুদ জাভেদ,উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহেরীন সাহের, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুল আল আমিন সাদি,মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম রিন্টু, সহ মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ এলাকার বিভিন্ন পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

৪নং ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি বেলাল,সেক্রেটারী নাজিমঃ
আলোচনা সভা শেষে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্বা আ.ক.ম বাহাউদ্দির বাহার এমপি মো.বেলাল হোসেন কে সভাপতি ও নাসির উদ্দিন নাজিমকে সাধারন সম্পাদক করে কুমিল্লা মহানগর ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ৬৯ সদস্যের কমিটির নাম ঘোষনা করেন। দলের ত্যাগী ও রাজপথের পরীক্ষিত কর্মীদের নিয়ে নবীন-প্রবীনের সমন্বয়ে গঠিত নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দকে নেতা-কর্মীরা বিপুল করতালির মাধ্যেমে অভিনন্দন জানান।