কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ইতালি প্রবাসী এক যুবককে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। ইতালি থেকে দেশে ফেরার চারদিন পর বৃহস্পতিবার তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

তবে তার শরীরে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ পাওয়া যায়নি বলে নিশ্চিত করেছেন নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেব দাস দেব।

জানা যায়, ইতালি প্রবাসী ওই যুবক গত চারদিন আগে ইতালি থেকে ঢাকায় আসেন। ঢাকায় দুইদিন অবস্থানের পর নাঙ্গলকোটে নিজ বাড়িতে এসে স্বাভাবিক চলাফেরা করেন। কিন্তু ইতালিতে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতায় স্থানীয়রা তার সঙ্গে মিশতে ভয় পেয়ে যান।

বৃহস্পতিবার স্থানীয়দের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিষয়টি জানতে পারেন নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেব দাস দেব। তিনি তাৎক্ষণিক ওই ইতালি প্রবাসীর পিতার সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত হন এখন পর্যন্ত তার মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি। তিনি ওই প্রবাসীকে ১৪ দিন নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন। ওই কর্মকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক তাৎক্ষণিক ওই প্রবাসী যুবককে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সার্বক্ষণিক তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেব দাস দেব বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এখন পর্যন্ত তার মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা যায়নি।

তিনি আরো জানান, করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুটি বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উপজেলার কোথাও কারো মাঝে এ ধরনের কোনো উপসর্গ দেখা গেলে তাৎক্ষণিক অবহিত করতে অনুরোধ করা হয়েছে।

ইউএনও লামইয়া সাইফুল জানান, আমি ওই ব্যাপারে অবগত রয়েছি। প্রবাসীকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার পরামর্শ প্রদান করেছি।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: