কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার জগৎপুর গ্রামে শারমিন আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূকে নির্যাতন শেষে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে এঘটনা ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তর জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার সদর ইউনিয়নের জগৎপুর গ্রামের মৃত কবির আহমেদের মেয়ে শারমিনের সাথে একই গ্রামের মফিজুল ইসলামের ছেলে মাসুদের বিয়ে হয়। নিহতের ভাই জাকির জানান, বিয়ের পর থেকেই মাসুদ বিভিন্নভাবে তার বোনকে নির্যাতন করতে থাকে। বিগত কিছুদিন ধরে মাসুদ শারমিনের কাছে একটি স্বর্নের চেইন বায়না করে। কিন্তু অভাবের সংসারের কারণে শারমিন তার ভাইয়ের কাছে স্বর্নের চেইন চাইতে অস্বীকার করে। গত ২৩ সেপ্টেম্বর শারমিন তার বোন নাজমার ছেলের সুন্নতে খৎনা উপলক্ষে স্বামীকে নিয়ে গেলে সেখানেও তাদের তর্কবিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে না খেয়েই তারা চলে আসে। জাকির আরো জানায়, আসার পর বোনের স্বামী মাসুদ থানায় একটি জিডি করে। গতকাল সকালবেলা ১১ টায় শারমিন এর লাশ গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ সুরুতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন।

বুড়িচং থানার ওসি তদন্ত মাসুদ খান জানান,লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসার পর হত্যার কারন জানা যাবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: