ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার চান্দিনায় মহিলা কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে দুই প্রতিবন্ধীর ভাতার টাকায় ভাগ বসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে । অভিযুক্ত নারী কাউন্সিলর নাসরিন আক্তার চান্দিনা পৌরসভার ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর। এই বিষয়ে ভুক্তভোগীরা বাদী হয়ে চান্দিনা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চান্দিনা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বেলাশ্বর গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের পুত্র বাবুল মিয়া এবং একই গ্রামের মৃত জাফর আলীর মেয়ে বিলকিস বেগম উভয়েই প্রতিবন্ধী।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর তাদের নামে প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড ইস্যু হয়। ইস্যুকৃত ভাতার কার্ড এর ভিত্তিতে উভয় প্রতিবন্ধীকে সোনালী ব্যাংক লিঃ এর চান্দিনা শাখায় ভাতার টাকা উত্তোলন করতে নিয়ে আসেন কাউন্সিলর নাসরিন।

ব্যাংকে এনে উভয় প্রতিবন্ধীর টিপসই নিয়ে তাদের নামে ৮হাজার ৪শ টাকা করে মোট ১৬ হাজার ৮শ টাকা উত্তোলন করেন। পরে দুই প্রতিবন্ধীকে ৫ হাজার ৪শ টাকা করে প্রদান করেন। উভয় প্রতিবন্ধীর ভাতা থেকে ৩ হাজার করে মোট ৬ হাজার টাকা সাবাড় করেন কাউন্সিলর নাসরিন।

এর কারণ জানতে চাইলে কাউন্সিলর নাসরিন প্রতিবন্ধীদের জানান, তাদের ভাতার কার্ড করা এবং টাকা উত্তোলনের জন্য দৌড়াদৌড়ি করতে গিয়ে যে খরচ হয়েছে, সেই খরচ বাবদ ৬ হাজার টাকা কেটে রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু ফয়সাল জানান, প্রতিবন্ধী বাবুল বাদী হয়ে চান্দিনা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।