কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ঢালুয়া ইউপির বদরপুর গ্রামের মৎস্য প্রজেক্টে তিনটি অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করছে প্রভাবশালী এক ব্যক্তি। তার এসব কাজে সহযোগীতা করছেন উপজেলা যুবলীগের এক বড় কর্তা।

দীর্ঘ দিন ধরে ঢালুয়া-চিলপাড়া- চৌদ্দগ্রাম চলাচলপথের বদরপুর নামকস্থানে সড়ক ও জনপদের সড়ক হুমকির আশংকা রয়েছে।

বালু উত্তোলন কারী চিওড়া মৎস্য প্রজেক্টের বদরপুর গ্রামের তনু মিয়ার ছেলে আবদুল মালেক। বালু ভরাট কারী চিওড়া গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে জহির ভূঁইয়া। ওই প্রভাবশালীদের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না কেউ। তবে স্থানীয়রা অনেকেই জানান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আবু ইউছুপ ভূঁইয়া জন প্রতিনিধি হয়েও আইনের প্রতি বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে বালু উত্তোলন করছে।

“বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ বিধি ৪ এর ‘খ’ তে বলা হয়েছে, সেতু কালভার্ট, ড্যাম, ব্যারেজ, বাঁধ, সড়ক, মহাসড়ক, বন রেল লাইন ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ও রেসরকারি স্থাপনা হইলে, অথবা আবাসিক এলাকা থেকে এক কিলোমিটার হইলে বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্ধারিত সীমানার মধ্যে হইলে এবং গ তে বলা হয়েছে, বালু বা মাটি উত্তোলন বা বিপণনের উদ্দেশ্যে ড্রেজিংয়ের ফলে কোনো নদীর তীর ভাঙনের শিকার হইতে পারে এ ক্ষেত্রে বালু বা মাটি উত্তোলন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বালু উত্তোলন কারীদেরকে না পাওয়া তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। তবে মুঠো ফোনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু ইউছুপ ভূঁইয়া বলেন, আমার জায়গা থেকে আমি বালু উত্তোলন করে ভরাট করছি।

এই বিষয়ে ৬ মার্চ নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাহী অফিসার লামইয়া সাইফুল মুঠো ফোনে বলেন, বালু উত্তোলন কারীর বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: