কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সীমানা প্রাচীর সংস্কারে পুরাতন রডগুলো ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটির নতুন ভবন,সীমানা প্রাচীরসহ ব্যাপক সংস্কার কাজ চলছে বর্তমানে। সীমানা প্রাচীরের পুরাতন ইটগুলো রেখেই কিছু কিছু স্থানে সেগুলো খুলে আবারো সেই পুরাতন ইট দিয়েই দেয়াল নির্মান করছে। এসময় পুরাতন পিলারগুলোর রডগুলো রেখে কাজ করায় কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। হাসপাতালটির দক্ষিণ পাশের বিশাল সীমানা প্রাচীরটি বর্তমানে কিছুটা উঁচু করার পাশাপাশি ভেঙ্গে যাওয়াও অংশও মেরামত করা হচ্ছে।

সরেজমিন স্থানীয় সুত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলা সদরে বুড়িচং ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটির অবস্থান। চলতি অর্থবছরে বিপুল টাকা ব্যয়ে হাসপাতালসহ সীমানা প্রাচীর সংস্কার করা হচ্ছে। কিন্তু দেখা গেছে ঠিকাদারের নিয়োজিত শ্রমিকরা সীমানা প্রাচীর নির্মানে পুরাতন রড ব্যবহার করায় এর স্থায়ীত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

স্থানীয় একাধিক সুত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, পুরাতন রড দিয়ে সীমানা প্রাচীরটি করায় যে কোন সময়ে ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে সীমানা প্রাচীরের পাশ দিয়ে সড়কটিতে চলাচলকারী যানবাহনের যাত্রী বা পথচারীদের যে কোন সময় দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে ক্ষয়ক্ষতির আশংকা রয়েছে।

বিষয়টি জানতে চাইলে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মীর হোসেন মিঠু বলেন, বিষয়টি আমার নজরেও পড়েছে। আমি এব্যাপারে কুমিল্লা স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তওে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: