ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেছেন, ‘ময়নামতি, আয়নামতি’ নয়, কুমিল্লা নামেই বিভাগ হতে হবে। ১৭৭৯ সালে কুমিল্লা জেলার গোড়াপত্তন হয়েছিল। ১৯৬২ সালে কুমিল্লা বিভাগ আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল। কুমিল্লা সব সূচকে এগিয়ে। তারপরও কুমিল্লাকে নিয়ে ষড়যন্ত্র বন্ধ হচ্ছেনা। কুমিল্লা নামে বিভাগের দাবীকে বাস্তবায়ন করার জন্য কুমিল্লার আপামর জনগণ আমার সাথে থাকবেন। ইতিহাস ঐতিহ্যের জেলা কুমিল্লা শব্দ বাদ দিয়ে ময়নামতি বলুন আর আয়নামতিই বলুন এসব নামে বিভাগ হবেনা। আমাদের বিশ্বাস ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক-বাহকের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কুমিল্লার নামেই বিভাগ ঘোষণা করবেন।

কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে শনিবার কলেজ অডিটরিয়ামে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি হাজী বাজার এসব কথা বলেন। তিনি সকলকে যার যার অবস্থান থেকে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার মধ্যদিয়ে মানব কল্যানে কাজ করে যাওয়ার আহবান জানান।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লা ভ্রমণে একদিনে যা যা দেখবেন

কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. জামাল নাছেরের সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপারের পদোন্নতিপ্রাপ্ত) আবদুল্লাহ আল মামুন, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূইয়া, জাগ্রত মানবিকতার প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক তাহসীন বাহার সূচি।

এছাড়াও ইফতার মাহফিলে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর আমীর আলী চৌধুরী, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রতন কুমার সাহা, অজিতগুহ কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক হাসান ইমাম মজুমদার ফটিক, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজের অধ্যক্ষ ড. একেএম এমদাদুল হক, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. আসাদুল্লাহ, উপপরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, কুমিল্লা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দা বিলকিস আরা বেগম, পিপি অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম সেলিমসহ বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। ইফতার মাহফিল পরিচালনায় ছিলেন কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আবদুল মোতালেব।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লার শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী মাতৃভান্ডারের রসমালাই

সূত্রঃ ইনকিলাব

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ