রাজাপুর ইউনিয়নে সর্বস্তরের জনসাধারনের সাথে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময়

মো.জাকির হোসেনঃ কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর বলেন, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং ও মাদক একটি সামাজিক ব্যাধীতে রুপান্তরিত হয়েছে। সকলে ঐক্য প্রচেষ্ঠা না থাকলে সমাজ থেকে এই ব্যাধী নির্মূল করা সহজ হবে না। তাই এগুলি নির্মুল করতে প্রশাসনের পাশাপাশি জনসতেনা তৈরী করতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে সর্বস্তরের জনসাধারনের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলি বলেন। বুড়িচং উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নির্বাহী অফিসার মোঃ ইমরুল হাসান এর সভাপতিত্বে শংকুচাইল ডিগ্রি কলেজ হল রুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বুড়িচং থানার ওসি তদন্ত মেজবাহ উদ্দিন ভূইয়া, শংকুচাইল বিজিবি ক্যাম্প এর সুবেদার মোঃ হুমায়ন কবির, রাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা, বাকশীমূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবদুল করিম ঠিকাদার। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকিয়া আফরিন এর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ শাহজাহান চেয়ারম্যান, শংকুচাইল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলাম, সমাজ সেবক মোঃ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, শংকুচাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নজরুল ইসলাম ভূইয়া ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিষদের মেম্বার, স্কুল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা, অভিভাবক ও এলাকার মান্যগণ্য ব্যক্তিবর্গ। পরে তিনি একটি বাড়ি একটি খামারের ৫ জন উদ্যোক্তাকে লক্ষাধিক টাকা প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক তাঁর বক্তব্যে আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অন্যান্য উন্নত দেশের মতই আমাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তার এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সর্বকাজে সহযোগীতা করতে হবে। পুরাপুরি ভাবে সাফল্যের দ্বারপ্রান্তে যেতে হলে প্রত্যেকটি পাড়া মহল্লা কমান্ড গঠন করে বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং রোধ করতে হেব। নারীদের আরো ক্ষমতায়ন করতে হবে। মাদক বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স করার সরকারের যে ঘোষণা দিয়েছে তার পাশাপাশি আমাদেরকেও দায়িত্ব নিয়ে মাদক নিমূর্লের লক্ষে সহযোগীতা করতে হবে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি স্থানীয়রাও ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের বিরোদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ