কুমিল্লার লাকসামে পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারি-পুরুষসহ ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছে। এ সময় বাড়িঘর তছনছ ও লুটপাট করা হয়েছে। এ ঘটনায় লাকসাম থানায় মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত একজনকে গ্রেফতার করেছে। আহতদের উদ্ধার করে লাকসাম সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের কে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

অভিযোগে জানা গেছে, শনিবার (২ এপ্রিল) দুপুরে লাকসাম উপজেলার বাকই দক্ষিণ ইউনিয়নের মালিবাউরতলা গ্রামে আবুল হোসেনের নারকেল গাছ থেকে ডাব পাড়তে যায় আনোয়ার হোসেনের ছেলে জাহেদ হোসেন হৃদয় (২০) এবং জাকির হোসেনের ছেলে সুজন (২২)। এ সময় তাদেরকে বাঁধা দেন আবুল হোসেনসহ পরিবারের সদস্যরা। কিছুক্ষণ পর জাহেদ হোসেন হৃদয়, সুজন, তার মা নাসিমা বেগম, মৃত আবদুর রহমানের ছেলে আজিজ উল্লাহ, তার ছেলে জাকির হোসেন, স্ত্রী আনোয়ারা বেগম, দিদার হোসেন, নোমান হোসেনসহ ১০/১২ জন দা, ছেনি ও লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে আবুল হোসেনের মাথায় ও পায়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। এ সময় পরিবারের অন্য সদস্য আবদুর রহমান এগিয়ে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে। হামলাকালে পরিবারের মহিলা সদস্যদের পিটিয়ে আহতসহ ঘরের দরজা-জানালা, আসবাবপত্র ভাঙ্গচুরসহ স্বর্ণালংকার, ৫টি মোবাইল ফোন লুটে নেয় দুস্কৃতিকারীরা।

আহতদের পরে আহতদের উদ্ধার করে লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ঘটনায় শনিবার (২ মে) রাতেই ভিকটিম আবুল হোসেনের ছেলে আমিনুল ইসলাম শাকিব বাদী হয়ে লাকসাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বাদী শাকিব জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে তারা পূর্বপরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে আমাদের পরিবারের ৬ জনকে গুরুতর আহতসহ লুটপাট ও ভাংচুর চালিয়েছে।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার বাবুল হোসেন জানান, উভয় পরিবারে জমি সংক্রান্তে আদালত ও থানায় মামলা রয়েছে। বিরোধপূর্ণ জমির গাছ থেকে ডাব পাড়তে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন আবুল হোসেন ও তার পরিবারের লোকদের উপর হামলা চালিয়ে মারাত্মক আহত করে। এ জনপ্রতিনিধি বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের বিষয়টিরও সত্যতা স্বীকার করেন।

বাকই (দঃ) ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল বলেন, উভয় পরিবারের জমি সংক্রান্ত বিরোধ মেটানোর জন্য বহুবার শালিস দরবার হয়েছে। আমরা নানাভাবে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রোববার (৩ এপ্রিল) লাকসাম থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: