নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সৌদি আরবের আরাগ ডিষ্ট্রিকের উকিয়া শহরে কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল গ্রামের এক সেলুন ব্যবসায়ী যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যুবরণ করেছে। ময়না তদন্তের জন্য নিহতের লাশ সৌদি পুলিশ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিহতের পিতা বাচ্চু মিয়া।

উপজেলার শশীদল উত্তরপাড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়া বাবুর্চির ছেলে মোঃ রাজু(২৪) গত ৪ বছর পূর্বে সংসারে আর্থিক স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে সৌদি আরব পাড়ি জমিয়েছিল। সেখানে সে একটি দোকান দিয়ে সেলুন ব্যবসা করে আসছিল। নিহতের পিতা বাচ্চু মিয়া রবিবার সকালে এ প্রতিনিধিকে জানান, গত ২৬ এপ্রিল শুক্রবার সৌদি আরব থেকে তার আতœীয়ের ফোনের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন তার ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করেছে। তিনি বলেন, তাকে জানানো হয়েছে ৩ দিন তার ছেলের দোকান তালাবদ্ধ থাকায় তার সহকর্মী ও ওই দেশে কর্মরত আতœীয় স্বজনরা তাকে তার থাকার ঘরসহ বিভিন্ন জায়গায় খোজ করে না পেয়ে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ অনেক খুজাখুজির পর তার দোকানের পেছনে একটি পরিত্যক্ত রুমে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। রবিবার দুপুর পর্যন্ত তারা লাশ দাফন ও দেশে আনার কোন ব্যবস্থা করতে পারেননি বলে তিনি জানান। কেন এবং কি কারনে রাজু আতœহত্যা করেছে তা কেউ কোন ধারনা করতে পারছেন না। রাজু কোন কোম্পানির দায়িত্বে কাজ করতোনা বিধায় তার লাশ নিজ খরচে দেশে আনতে প্রায় ৭ থেকে ৮ লক্ষ টাকা খচর করতে হবে বলে জানান তার বাবা। কেন ছেলের এভাবে মৃত্যু হল এবং এত টাকা খচর করে কিভাবে ছেলের লাশ দেশে আনবেন তা নিয়ে উদ্ভেক ও উৎকন্ঠায় আছেন তিনি। দুই ভাই ৩ বোনের মধ্যে রাজু ছিল ২য়। তার করুণ মৃত্যুতে পরিবারে ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।