কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহন বাসে সন্ত্রাসীদের হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার (১৭ দিসেম্বর) সকাল ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শহরগামী একটি বাসে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এতে বাস চালকসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এদিকে এ সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতি। রবিবার কর্মচারী সমিতির আহ্বায়ক মোঃ নজরুল ইসলাম এবং সদস্য সচিব মোঃ মহসিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শহরগামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাস দৌলতপুর চৌরাস্তায় পৌঁছালে একটি মোটরসাইকেল পেছন থেকে পাশ কাটিয়ে যেতে না পারায় বাসের চালকের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে বাস চালককে গালি দেয় এবং পথ রোধ করে। এতে বাস চালক সুমন চন্দ্রদাস প্রতিবাদ করায় তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে হেলমেট দিয়ে তার নাকে আঘাত করে এবং মারধর করে মোটর সাইকেল আরোহী শান্ত (৩০) ও জালাল (২৫)। এসময় অন্য বাস চালক ও হেলপাররা এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারধর করে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি ভাংচুর করে। এসময় ঐ হামলাকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের চালক ও হেলপারদের মোবাইল ও মানিব্যাগ নিয়ে যায়। এছাড়াও দৌলতপুর এলাকার দোকানদাররা এসময় ঐ হামলাকারীদের সাথে যোগ হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি পুঁড়িয়ে দেয়ারও পরিকল্পনা করে বলে জানা যায়। এসময় দৌতলপুর এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ির জন্য অপেক্ষারত শিক্ষার্থীরা দৌড়ে এসে হামলাকারীদের ধাওয়া দেয় এবং মারধর করে। কিছুক্ষণের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গাড়ি ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছালে শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় হামলাকারীদের মোটরসাইকেলটি জব্ধ করে এবং আরিফুল ইসলাম নামে আরেক হামলাকারীকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে আসে। পরে পুলিশ এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিস থেকে হামলাকারী আরিফুলকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। এঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা যায়।

হামলাকারী সন্ত্রাসীদের মধ্যে অন্যরা হলেন, মদিনগরের রাকিব (২৫) ও রনি (২৫)। এদিকে সন্ত্রাসী হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চালক রিপন (২৫), হাসান খান (২২), রবিউল (২৮), বিআরটিসি বাসের চালক বাবুল প্রমাণিকসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে বাবুল চন্দ্র দাস গুরতর আহত হয়েছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতি.বঙ্গবন্ধু কর্মচারী সমিতি, বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন কর্মচারী ইউনিয়ন।

এ বিষয় প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, “বিষয়টি আমি জেনেছি এবং আহতদের লিখিত দিতে বলেছি। দোষীদের শাস্তির জন্য দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহনে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সুপারিশ করা হবে”।

জানতে চাইলে রেজিস্ট্রার মো. মজিবুর রহমান মজুমদার জানান, “আমরা মামলা করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। দ্রুতই এর কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়া হবে”।

কোটবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক নাহিদ আহমেদ বলেন, “ঘটনা কোতওয়ালী থানার আওতাধীন। তবে আমরা এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে এর বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিব”।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: