ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় নিখোঁজের তিন দিন পর ডোবা থেকে আয়েশা আক্তার নামে তিন বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে অজুফা বেগম নামে এক গৃহবধূকে আটক করা হয়েছে।

আয়েশা নগরের সংরাইশ এলাকার রাজমিস্ত্রি আবদুল লতিফের মেয়ে। আটক অজুফা বেগম প্রতিবেশী মালু মিয়ার স্ত্রী। বৃহস্পতিবার (১০ মে) দুপুরে নগরের সংরাইশ এলাকার ভুতের গলির একটি ডোবা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, শিশু আয়েশা আক্তারের পরিবারের সঙ্গে প্রতিবেশী মালু মিয়ার পরিবারের বিরোধ চলছিলো। এ নিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আয়েশার পরিবারকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন মালু মিয়ার পরিবার। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার (০৮ মে) বিকেল থেকে নিখোঁজ হয় শিশু আয়েশা আক্তার। এ বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন আয়েশার পরিবার।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর মালু মিয়ার বাড়ির পাশের একটি ডোবায় আয়েশার মরদেহ ভাসতে দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে মরদেহটি উদ্ধার করে। এ বিষয়ে শিশুটি বাবা আবদুল লতিফ জানান, পারিবারিক বিরোধের কারণেই মালু মিয়া ও তার স্ত্রী আমার মেয়েকে হত্যা করেছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবু সালাম মিয়া জানান, শিশুর মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই শিশুটির প্রতিবেশী মালু মিয়ার স্ত্রী অজুফা বেগমকে আটক করা হয়েছে। আমরা তদন্ত করছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: