কুমিল্লার মুরাদনগরের কুড়াখালে জুমার আজান দেওয়াকে কেন্দ্র করে মসজিদে এক মুসল্লিকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জহির খাঁন (৩০) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) ভোরের দিকে কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা ও বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার জহির মুরাদনগর উপজেলার কুড়াখাল গ্রামের পইরন খাঁনের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ সেপ্টেম্বর মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরাবাজার থানার কুড়াখাল গ্রামের বাইতুন নুর জামে মসজিদে জুমার আজান দেওয়াকে মসজিদে কেন্দ্র করে এক পক্ষ আরেক পক্ষকে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় হানিফ খান নামের এক মুসল্লি ঘটনাস্থলে নিহত হন। আহত হন অন্তত সাতজন। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আফরোজা খাতুন বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় আরও পাঁচজনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা এলাকা থেকে এজাহারনামীয় চার নম্বর পলাতক আসামি জহির খানকে গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় এজাহারনামীয় আরও আটজন আসামি পলাতক। এজাহারনামীয় ১ নম্বর আসামি শাহিন ভূূঁইয়া কারাগারে রয়েছেন।

বাঙ্গরাবাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আসামিকে গ্রেফতার করে থানায় পৌঁছাতে দুপুর হয়ে গেছে। শুক্রবার (৮ অক্টোবর) সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কারাগারে পাঠানো হবে। মামলার বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: