মারুফ আহমেদঃ শনিবার বিকাল সাড়ে ৩ টা। ব্যস্ততম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আমতলী এলাকা। সড়কজুড়ে চলছে দ্রুতগতির যানবাহনের পারাপারের দৃশ্য। রোডডিভাইডারের কারণে পথচারীদের সংখ্যাও কম । হঠাৎ মহাসড়কের পাশে ছোট্ট একটা জটলা। এগিয়ে যেতেই চোঁখে পড়লো প্রসব বেদনায় কাতড়াচ্ছে ১৩/১৪ বছরের এক পাগলী কিশোরী। স্থানীয় ৩/৪জন মহিলা সন্তান ভূমিষ্টের প্রানান্তকর চেষ্টায় ব্যস্ত।

খবর পেয়ে ছুটে আসে ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট পুলিশ ফাঁড়ির আইসি’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ সদস্য। তারাও চেষ্টার হাত বাড়ায়। পৃথিবীর আলো দেখে এক কন্যা সন্তান। এরপর পুলিশ এ্যাম্বূলেন্স এনে মা সহ নবজাতক শিশুটিকে স্বাস্থ্যসেবা দিতে নিয়ে যায় ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার দূর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নের আমতলী এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লাগামী অংশে এ্যাপোলো ট্রেডার্স নামের একটি রড,সিমেন্টের দোকানের সামনে গতকাল শনিবার বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৩ টায় ১৩/১৪ বছরের এক কিশোরী প্রসব বেদনায় রাস্তার পাশে পড়ে কাতড়াতে থাকে।

মুহুর্তে খবরটি আশপাশের লোকজনের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে। এগিয়ে আসেন আমতলী মসজিদ সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা মিনুয়ারা,আনোয়ারা,কুলসুমসহ আরো এক মহিলা। তারা যখন সন্তান ভূমিষ্টের চেষ্টা করছিলেন,তখন বিষয়টি শুনে ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট ফাঁড়ি পুলিশের আই.সি শেখ মাহমুদুল হাসান রুবেলের নেতৃত্বে এসআই দয়াল হরি,এএসআই রাজু , নুর আলমসহ পুলিশের একটি দল ছুটে আসে ওই স্থানে। এক পর্যায়ে ওই পাগলী কিশোরী প্রসব করে এক কন্যা সন্তান।

পরবর্তীতে আইসি’র সহযোগীতায় একটি এ্যাম্বূলেন্সে করে নবজাতক ও কিশোরী মাতাকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় ময়নামতি সেনানিবাস এলাকায় ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে। বর্তমানে মা ও নবজাতক সুস্থ্য আছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: