কুমিল্লার পদুয়ারবাজার বিশ্বরোড এলাকায় এক মাইক্রোবাস চালকের হামলায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ১১ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। আহত শিক্ষার্থীর নাম মাহমুদুল হাসান সুজন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

জানা যায়, কোটবাড়ি বিশ্বরোড থেকে পদুয়ার বাজারগামী একটি মাইক্রোবাসে উঠেন সুজন ও তার বন্ধু নূর মোহাম্মদ। সামনের সিটে দুজনের একজনকে বসতে বললে তারা রাজি না হওয়ায় চালক দুর্ব্যবহার করে তাদের সঙ্গে। এ নিয়ে তাদের সঙ্গে চালকের বাগবিতণ্ডা হয়।

পরে পদুয়ারবাজার বিশ্বরোডে গাড়ি থেকে নেমে গালি দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে সুজনকে আঘাত করেন চালক। এ সময় নূর মোহাম্মদ প্রতিবাদ জানালে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায় মাইক্রোবাসচালক।

আহত সুজন বলেন, সামনের সিটে বসাকে কেন্দ্র করে চালক আমাদের গালিগালাজ করলে প্রতিবাদ করতে চাইলে আমাদের মোবাইল নিয়ে নেওয়ার হুমকি দেয়। কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে আমার মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যায় চালক। এ সময় আমার বন্ধু নূর মোহাম্মদকেও চালক ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়।

নূর মোহাম্মদ বলেন, আমরা ফেনী যাওয়ার উদ্দেশে কোটবাড়ি বিশ্বরোড থেকে পদুয়ারবাজার বিশ্বরোড যেতে এক মাইক্রোবাসে উঠি। এ সময় সিটে বসা নিয়ে চালক দুর্ব্যবহার করে আমাদের সাথে। এমনকি আমাদের মোবাইল নিয়ে নেবে বলে হুমকি দেয়, আমরা প্রতিবাদ করতে চাইলে সুজনকে আঘাত করে পালিয়ে যায় চালক।

কুমিল্লা সদর দক্ষিণের পুলিশ পরিদর্শক দেবাশিস চৌধুরী বলেন, এ বিষয়টি তখনই ভুক্তভোগীর পক্ষ ও গাড়ির মালিকপক্ষ সবার উপস্থিতিতে বিষয়টি আপস করা হয়েছে। এ নিয়ে আর মামলা হয়নি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: