ধানের দাম কম শ্রমিকের মজুরি বেশী, এছাড়াও করোনা আতঙ্কে ধানকাটা শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে ধানকাটা ও মাড়াই নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষক। তাই ক্ষেতে পাকা ধান যখন কাটছেন না কৃষক- তখনই কুমিল্লা তিতাস উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশনের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান চৌধুরীর উদ্যোগে একদল ছাত্র-শিক্ষক কৃষকের পাকা ধান স্বেচ্ছাশ্রমে কেটে দিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মাছিমপুর গ্রামের কৃষক মোঃ শেখ ফরিদ মিয়ার ৩০ শতাংশ জমির ধান কেটে মাড়াই করে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে তারা।

ধান কাটা অংশ নেন, মাছিম হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান চৌধুরী, সহকারী শিক্ষক ফারুক আহম্মেদ, সেলিম মিয়া, হাবিবুর রহমান, আবুল কাশেম, আসিফ, লিটনসহ প্রায় ১৫ জন শিক্ষার্থীবৃন্দ।

প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান বলেন, আমাদের ছাত্র-শিক্ষকরা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে সেচ্ছাশ্রমে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে এক সাপ্তাহ ধরে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ মাছিমপুর গ্রামের এক কৃষকের ধান কেটে দেই আমিসহ প্রায় ২০জন ছাত্র-শিক্ষক। এবং এই ধান কাটার কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: