নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার লাকসাম পৌরসভার ০২নং ওয়ার্ডের ডুরিয়াবিষ্ণুপুর গ্রামে আদালতের আদেশ অমান্য করে স্থাপনা নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উক্ত গ্রামের মাষ্টার রুহুল আমিনের ছেলে হাকিম গোলাম সরোয়ারের ক্রয়কৃত ভূমিতে গত ০৬-০৫-২০১৯ইং তারিখ জোর পূর্বক দোকান ঘর নির্মাণ শুরু করে একই গ্রামের কাজিম উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান, রবিউল ও কাজিম উদ্দিন। ঘটনা শুরুতে সরোয়ার গ্রামের সর্দ্দার ও গন্যমান্য বক্তিবর্গের নিকট নালিশ করে কোন সমাধান না পেয়ে গত ১৩-০৫-২০১৯ইং তারিখ কুমিল্লা জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর আদালতে বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং-পি,আর-৭০০/১৯। মামলা দায়ের করার গত ২০-৫-২০১৯ইং তারিখ, লাকসাম থানার এস.আই (নিঃ) মোঃ নাজিম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে এস,আই, মোঃ নাজিম উদ্দিন বাদি ও বিবাদীদের দোকান ঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য নোটিশ এর মাধ্যমে অবগত করে। বিবাদীগণ গত ০৩-০৬-২০১৯ইং তারিখ বিকাল বেলায় অবৈধ ভাবে কাজ শুরু করলে বাদি এস,আই মোঃ নাজিম উদ্দিনকে ফোনে জানালে তিনি বিবাদীগণকে মোবাইলে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।। অদ্য ০৪-০৬-২০১৯ইং তারিখ সকাল বেলা থেকে বিবাদীগণ পুনরায় দোকানঘর নির্মাণ কাজ শুরু করে এবং দরজা জানালার সংযোজন প্রক্রিয়া চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রামের প্রভাবশালী মোঃ আবুল কাসেম ডিলার বিবাদীগণের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ গ্রহন করে পক্ষপাতিত্ব করছে। প্রায় ৪ বছর পূর্বে আবুল কাসেম ডিলার বাদি গোলাম সরোয়ারের নিকট থেকে ১,২০,০০০/-(এক লক্ষ বিশ হাজার) টাকা চাঁদা নেওয়ার অভিযোগ আছে। এব্যাপারে লাকসাম থানার এস,আই মোঃ নাজিম উদ্দিনকে মোবাইল ফোনে কল করলে তিনি বলেন, আমি ছুটিতে আছি, যদি বিবাদীগণ আদালতের আদেশ অমান্য করে তাহলে আদালত বিবাদীগণের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করব।

এব্যাপারে ০১নং বিবাদী মোঃ শাহাজাহানকে মোবাইলে ফোন করলে তিনি বলেন, আদালত দোকানঘর নির্মাণ বন্ধ রাখার বিষয়ে কোন নির্দেশ দেননি তাই আমি কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: