লাকসামে শ্বশুরবাড়ির পাশে সড়ক থেকে জামাইয়ের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে উপজেলার লাকসাম-মুদাফরগঞ্জ সড়কের চিকোনিয়া গ্রামের আনছারিয়া কমপ্লেক্স সংলগ্নে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঐদিন অজ্ঞাতনামা হিসেবে লাশটি মর্গে পাঠায়। পরে ফেসবুকে দেখে স্বজনরা নিহতের লাশ সনাক্ত করে। নিহত মোহাম্মদ সোহেল (২৭) উপজেলার কান্দিরপাড় ইউনিয়নের হামিরাবাগ গ্রামের আহছান উল্লার ছেলে।

স্থানিয় সুত্রে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে সোহেলের সাথে তার স্ত্রীর বনিবনা হচ্ছিল না। এ ঘটনার দিন সোহেলের স্ত্রী তার শ্বশুরবাড়িতে ছিলেন। সোহেল গত বৃহস্পতিবার তার হামিরাবাগ নিজ বাড়ী থেকে বিকালে চিকোনিয়া গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে যান। শুক্রবার সকালে লাকসাম- মুদাফরগঞ্জ সড়কে রক্তাক্ত অবস্থায় সোহেলের লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন ৯৯৯ নম্বরে কল করেন। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। তবে এটি দুর্ঘটনা নাকি হত্যা এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

লাকসাম থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ তোফাজ্জল হোসেন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে শুক্রবার অজ্ঞাত নামা হিসেবে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। পরে ফেসবুকে দেখে নিহতের স্বজনরা লাশ শনাক্ত করেন। নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে এ পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান, সোহেল মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। রাস্তায় ঘুরাঘুরির সময়ে অজ্ঞাত নামা গাড়ির ধাক্কায় তার মৃত্যু হতে পারে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: