ডেস্ক রির্পোটঃ কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় যৌতুকের জন্য নববধু ফারজানা আক্তারকে (১৭) কুপিয়ে-পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে পাষন্ড স্বামী, ননদ ও শ্বশুর-শ্বাশুড়ীর বিরুদ্ধে।

উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়নের কালিপুর গ্রামে ঘটে এ ঘটনা। নিহত গৃহবধূ ওই গ্রামের মোঃ ফজর আলীর মেয়ে ও একই গ্রামের মকবুল মিয়ার ছেলে মিঠুন মিয়ার স্ত্রী।

এদিকে ওই গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতনে হত্যা করা হলেও কৌশলে স্বামীর পরিবারের লোকজন তাদের ঘরের বারান্দায় চালের কাঠের সাথে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু বিষয়টি এলাকায় জানা জানি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নিহতে শরীরে বেশ কিছু আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে নিহতে মা জানায়। তবে এঘটনায় এখনো কেউ গ্রেফতার হয়নি।

তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি(তদন্ত) মঞ্জুর কাদের জানান, নিহত গৃহবধূর শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এটি হত্যাকান্ড নাকি আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্ত শেষে জানা যাবে। এ বিষয়ে মেয়ের বাবা ফজর আলী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: